৭ নিত্যপণ্যের দাম বেড়েছে

ডেস্ক রিপোর্ট : দেশে করোনাভাইরাসের প্রকোপের মধ্যে গত এক সপ্তাহে অন্তত সাতটি নিত্যপণ্যের দাম বেড়েছে কয়েকগুণ। এসব পণ্যের মধ্যে আদার ঝাঁজ সবচেয়ে বেশি। দাম বৃদ্ধি পাওয়া সাতটি পণ্য হলো- চাল, ডাল, সয়াবিন তেল, পেঁয়াজ, আদা, রসুন ও শুকনো মরিচ। সরকারি প্রতিষ্ঠান ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বংলাদেশের (টিসিবি) প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে।

টিসিবির তথ্য অনুযায়ী, গত এক সপ্তাহে সবচেয়ে বেশি দাম বেড়েছে আদার। এ পণ্যটির দাম এক সপ্তাহে ১০৪ শতাংশ বেড়েছে। শতকরা হিসেবে সবচেয়ে কম দাম বেড়েছে সয়াবিন তেলের। এ পণ্যটির দাম বেড়েছে এক শতাংশ।

রাজধানীর শাহজাহানপুর, মালিবাগ বাজার, কারওয়ানবাজার, বাদামতলী বাজার, সূত্রাপুর বাজার, শ্যাম বাজার, কচুক্ষেত বাজার, মৌলভী বাজার, মহাখালী বাজার, উত্তরা আজমপুর বাজার, রহমতগঞ্জ বাজার, রামপুরা এবং মিরপুর-১ নম্বর বাজারের পণ্যের দামের তথ্য নিয়ে এ প্রতিবেদন তৈরি করেছে টিসিবি।

টিসিবির তথ্য অনুযায়ী, বর্তমানে নাজির ও মিনিকেট চালের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৬০ থেকে ৬৮ টাকা, যা এক সপ্তাহ আগে ছিল ৫৫ থেকে ৬৫ টাকা। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে এ দুই ধরনের চালের দাম বেড়েছে ৬ দশমিক ৬৭ শতাংশ।

চিকন চালের পাশাপাশি দাম বেড়েছে মাঝারি মানের চালের। মাঝারি মানের চাল পাইজাম ও লতার দাম সপ্তাহের ব্যবধানে বেড়েছে ২ দশমিক ৮৬ শতাংশ। বর্তমানে পাইজাম ও লতা চালের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৫৮ টাকা। যা এক সপ্তাহ আগে ছিল ৫০ থেকে ৫৫ টাকা।

গত এক সপ্তাহে দেশি রসুনের দাম বেড়েছে ১৫ শতাংশ। এক সপ্তাহ আগে ৮০ থেকে ১২০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া দেশি রসুনের দাম বেড়ে হয়েছে ১০০ থেকে ১৩০ টাকা। দেশি ও আমদানি উভয় ধরনের পেঁয়াজের দাম বেড়েছে।

তবে দেশি পেঁয়াজের তুলনায় আমদানি করা পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধির হার বেশি। ৪৫ থেকে ৫০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া দেশি পেঁয়াজের দাম ১৫ দশমিক ৭৯ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ৫০ থেকে ৬০ টাকা। আর আমদানি পেঁয়াজের দাম ৩১ দশমিক ২৫ শতাংশ বেড়ে ৩৫-৪৫ থেকে হয়েছে ৫০-৫৫ টাকা।

গত এক সপ্তাহে টিসিবির হিসাবে সবচেয়ে বেশি বেড়েছে দেশি আদার দাম। এক সপ্তাহে পণ্যটির দাম বেড়েছে ১০৩ দশমিক ৭০ শতাংশ। ১২০ থেকে ১৫০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া দেশি আদার দাম বেড়ে হয়েছে ২৫০ থেকে ৩০০ টাকা। দেশি আদার সঙ্গে দাম বেড়ে প্রায় দ্বিগুণ হয়েছে আমদানি করা আদার মূল্য।

এক সপ্তাহে আমদানি করা আদার দাম বেড়েছে ৯৬ দশমিক ৯৭ শতাংশ। ১৫০ থেকে ১৮০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া আমদানি করা আদা এখন বিক্রি হচ্ছে ৩০০ থেকে ৩৫০ টাকায়। খুচরা বাজারে আদা এখন ৪০০ টাকার চেয়েও বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে।

গত এক সপ্তাহে ছোট দানার মসুর ডালের দাম ৬ দশমিক ২৫ শতাংশ বেড়েছে বলে জানিয়েছে টিসিবি। প্রতিষ্ঠানটির তথ্য অনুযায়ী, এক সপ্তাহ আগে ১১০ থেকে ১৩০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া ছোট দানার মসুর ডালের দাম বেড়ে হয়েছে ১২৫ থেকে ১৩০ টাকা।

টিসিবি বলছে, দেশি শুকনো মরিচের দাম এক সপ্তাহে বেড়েছে ১৮ দশমিক ৪২ শতাংশ। ১৮০ থেকে ২০০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া শুকনো মরিচের দাম বেড়ে হয়েছে ২০০ থেকে ২৫০ টাকা। আর আমদানি করা শুকনো মরিচের দাম বেড়েছে ২০ শতাংশ।

এক সপ্তাহ আগে ২০০ থেকে ৩০০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া আমদানি করা শুকনো মরিচের দাম বেড়ে হয়েছে ২৫০ থেকে ৩৫০ টাকা। আর পাঁচ লিটার বোতলের সোয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ৪৯০ থেকে ৫২০ টাকা, যা এক সপ্তাহ আগে ছিল ৪৮০ থেকে ৫২০ টাকা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here