৩০ প্রতিষ্ঠানের আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ

স্টাফ রিপোর্টার : পুঁজিবাজারে তালিকাভূক্ত ২৭ কোম্পানি ও ৩ মিউচ্যুয়াল ফান্ড আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। কোম্পানিগুলোর বৈঠকে সর্বশেষ (জানুয়ারি’১৯-মার্চ’১৯) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা ও অনুমোদন করা হয়।

ইফাদ অটোস

তৃতীয় প্রান্তিকের ইফাদ অটোসের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ৩ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ১ টাকা ৭৩ পয়সা।

৯ মাসে (জুলাই’১৮-মার্চ’১৯) কোম্পানির ইপিএস হয়েছে ৪ টাকা ২১ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৪ টাকা ৮০ পয়সা।

বেক্সিমকো ফার্মা

তৃতীয় প্রান্তিকে বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালসের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ৮৪ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ১ টাকা ৪৯ পয়সা।

গত নয় মাসে (জুলাই,১৮-মার্চ,১৯) কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৫ টাকা ৫১ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ৪ টাকা ৭৪ পয়সা।

বারাকা পাওয়ার

তৃতীয় প্রান্তিকে বারাকা পাওয়ারের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ৩২ পয়সা।

৯ মাসে (জুলাই’১৮-মার্চ’১৯) কোম্পানির ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ২৭ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১ টাকা ৩৭ পয়সা।

হামিদ ফেব্রিক্স

তৃতীয় প্রান্তিকে হামিদ ফেব্রিক্সের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ১০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ১ টাকা ৫৪ পয়সা।

একমি ল্যাবরেটরিজ

তৃতীয় প্রান্তিকে একমি ল্যাবরেটরিজের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ৭৪ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ১ টাকা ৮৫ পয়সা।

৯ মাসে (জুলাই’১৮-মার্চ’১৯) কোম্পানির ইপিএস হয়েছে ৫ টাকা ৪৩ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৫ টাকা ৬৬ পয়সা।

এটলাস বাংলাদেশ

তৃতীয় প্রান্তিকে এটলাস বাংলাদেশের শেয়ার প্রতি আয় লোকসান হয়েছে ৪৪ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে লোকসান ছিল ৩৫ পয়সা।

৯ মাসে (জুলাই’১৮-মার্চ’১৯) কোম্পানির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে  ১  টাকা ১৪ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে লোকসান ছিল ১ টাকা ৩৬ পয়সা।

প্রিমিয়ার সিমেন্ট

তৃতীয় প্রান্তিকে প্রিমিয়ার সিমেন্টের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩ টাকা ৯ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ২ টাকা ৭০ পয়সা।

এস আলম কোল্ডরোল

তৃতীয় প্রান্তিকে এস আলম কোল্ডরোলের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে  ১ টাকা ৩৭ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ১  টাকা ২৯ পয়সা।

বেক্সিমকো লিমিটেড

তৃতীয় প্রান্তিকে বেক্সিমকো লিমিটেডের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪২ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ৩৯ পয়সা।

৯ মাসে (জুলাই’১৮-মার্চ’১৯) কোম্পানির ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ২১ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১ টাকা ৪ পয়সা।

বেক্সিমকো সিনথেটিকস

তৃতীয় প্রান্তিকে বেক্সিমকো সিনথেটিকসের শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ৮১ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে লোকসান ছিল ১ টাকা ৩৬ পয়সা।

৯ মাসে (জুলাই’১৮-মার্চ’১৯) কোম্পানির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ২ টাকা ৫৩ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে লোকসান ছিল ২ টাকা ৪৬ পয়সা।

ইস্টার্ন ইন্স্যুরেন্স

প্রথম প্রান্তিকে ইস্টার্ন ইন্স্যুরেন্সের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) করেছে ৭৯ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস হয়েছিল ৭৩ পয়সা।

শাইনপুকুর সিরামিকস

তৃতীয় প্রান্তিকে শাইনপুকুর সিরামিকসের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে  ৯ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ৯ পয়সা।

৯ মাসে (জুলাই’১৮-মার্চ’১৯) কোম্পানির ইপিএস হয়েছে ৩০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ২৫ পয়সা।

ইবনে সিনা

তৃতীয় প্রান্তিকে ইবনে সিনার শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ৯৯ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ১ টাকা ৫৫ পয়সা।

৯ মাসে (জুলাই’১৮-মার্চ’১৯) কোম্পানির ইপিএস হয়েছে ৭ টাকা ৯৫ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৬  টাকা ৯৬ পয়সা।

বিডি ল্যাম্পস

তৃতীয় প্রান্তিকে বিডি ল্যাম্পসের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৬ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ৭০ পয়সা।

৯ মাসে (জুলাই’১৮-মার্চ’১৯) কোম্পানির ইপিএস হয়েছে ৮৮ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ২ টাকা ৭ পয়সা।

আরগন ডেনিমস

তৃতীয় প্রান্তিকেআরগন ডেনিমসের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৭৭ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ৯৩ পয়সা।

৯ মাসে (জুলাই’১৮-মার্চ’১৯) কোম্পানির ইপিএস হয়েছে ২ টাকা ৫৬ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ২ টাকা ৮৮ পয়সা।

অলিম্পিক এক্সেসরিজ

তৃতীয় প্রান্তিকে অলিম্পিক এক্সেসরিজের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ১৮ পয়সা।

৯ মাসে (জুলাই’১৮-মার্চ’১৯) কোম্পানির ইপিএস হয়েছে ৪৯ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৬৬ পয়সা।

রহিম টেক্সটাইল

তৃতীয় প্রান্তিকে রহিম টেক্সটাইলের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ১০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ৩ টাকা ১২ পয়সা।

৯ মাসে (জুলাই’১৮-মার্চ’১৯) কোম্পানির ইপিএস হয়েছে ৬ টাকা ২৬ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৬ টাকা ৫ পয়সা।

ফেডারেল ইন্স্যুরেন্স

প্রথম প্রান্তিকে ফেডারেল ইন্স্যুরেন্সের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) করেছে ১৫ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস হয়েছিল ১১ পয়সা।

ফরচুন সুজ

তৃতীয় প্রান্তিকে ফরচুন সুজের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে  ৫৪ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ৪০ পয়সা।

৯ মাসে (জুলাই’১৮-মার্চ’১৯) কোম্পানির ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৬৭ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১ টাকা ১৯ পয়সা।

আরামিট লিমিটেড

আরামিট লিমিটেড তৃতীয় প্রান্তিকে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) করেছে ৮০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ৩ টাকা ৩৮ পয়সা।

৯ মাসে (জুলাই’১৮-মার্চ’১৯) কোম্পানির ইপিএস হয়েছে ৭ টাকা ৫৪ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ২ টাকা ৪৬ পয়সা।

আরামিট সিমেন্ট

তৃতীয় প্রান্তিকে আরামিট সিমেন্টের শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ৪ টাকা ৭৯ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে লোকসান ছিল ৩ টাকা ৭৯ পয়সা।

আজিজ পাইপস

তৃতীয় প্রান্তিকে আজিজ পাইপসের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩৪ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ২৫ পয়সা।

৯ মাসে (জুলাই’১৮-মার্চ’১৯) কোম্পানির ইপিএস হয়েছে ৬৩ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৬১ পয়সা।

ফু-ওয়াং ফুড

তৃতীয় প্রান্তিকে ফু ওয়াং ফুডের বেসিক শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৬৭ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ৫১ পয়সা।

খুলনা প্রিন্টিং অ্যান্ড প্যাকেজিং

তৃতীয় প্রান্তিকে খুলনা প্রিন্টিং অ্যান্ড প্যাকেজিংয়ের শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ২৭ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ৫৯ পয়সা।

৯ মাসে (জুলাই’১৮-মার্চ’১৯) কোম্পানির লোকসান হয়েছে ৮০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১ টাকা ১৩ পয়সা।

এমবি ফার্মা

তৃতীয় প্রান্তিকে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৮৫ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ৯৫ পয়সা।

৯ মাসে (জুলাই’১৮-মার্চ’১৯) কোম্পানির ইপিএস হয়েছে ২ টাকা ৫৪ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ২ টাকা ৫২ পয়সা।

মালেক স্পিনিং

তৃতীয় প্রান্তিকে মালেক স্পিনিংয়ের কনসলিডেটেড শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ২০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে আয় ছিল ৩৪ পয়সা।

৯ মাসে (জুলাই’১৮-মার্চ’১৯) কোম্পানির কনসলিডেটেড ইপিএস হয়েছে ৫৯ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৮৩ পয়সা।

হাক্কানি পাল্প

তৃতীয় প্রান্তিকের হাক্কানি পাল্পের শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ৪২ পয়সা। এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ৭৪ পয়সা।

আর গত ৯ মাসে (জুলাই, ১৮-মার্চ,১৯) লোকসান হয়েছে ১ টাকা ৬ পয়সা। এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ১ টাকা ৫ পয়সা।

এসইএমএল লেকচার ইক্যুইটি ফান্ড

তৃতীয় প্রান্তিকে এসইএমএল লেকচার ইক্যুয়িটি ম্যানেজমেন্ট ফান্ডের প্রতি ইউনিটে  আয় (ইপিইউ) হয়েছে ৩০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে লোকসান ছিল ৯ পয়সা।

৯ মাসে (জুলাই’১৮-মার্চ’১৯) ফান্ডটির ইপিইউ হয়েছে ৮১ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিইউ ছিল ৬৬ পয়সা।

এসইএমএল এফবিএলএসএল গ্রোথ ফান্ড

তৃতীয় প্রান্তিকে এসইএমএল এফবিএলএসএল গ্রোথ ফান্ডের প্রতি ইউনিটে আয় (ইপিইউ) হয়েছে ৩ পয়সা। ইউনিট প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১০ টাকা ৬০ পয়সা।

প্রাইম ফাইন্যান্স ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড

তৃতীয় প্রান্তিকে প্রাইম ফাইন্যান্স ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ডে  ইউনিট প্রতি আয় (ইপিইউ) হয়েছে ২৪ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ২৩ পয়সা।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here