সালমান এফ রহমানের ওভার ইনভয়েসিং আন্ডার ইনভয়েসিং বন্ধের আহ্বান

 ডেক্স রিপোর্ট : আমদানি- রফতানি চালানে ওভার ইনভয়েসিং ও আন্ডার ইনভয়েসিং এবং বন্ডেড ওয়্যারহাউজ সুবিধার অপব্যবহার বন্ধের আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগবিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান। বিজিএমই এর সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে শনিবার তিনি এ আহ্বান জানান।

সালমান এফ রহমান বলেন, সাধারণভাবে ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে দুটো সমালোচনা হয়। একটা হলো আন্ডার ইনভয়েসিং-ওভার ইনভয়েসিং, আরেকটা বন্ডের লিকেজ।

তারা বলেন গার্মেন্টস সেক্টরে এত লিকেজ হচ্ছে, ওখানে দিলে ওখানেও লিকেজ হবে। আমার কথা হলো, গার্মেন্টে যতই লিকেজ হোক না কেন, ৩৫ বিলিয়ন ডলার পর্যন্ত রফতানি তো চলেই এসেছে। অন্য সেক্টরেও লিকেজ হোক, তারা যদি ৩৫ বিলিয়ন ডলারে আসতে পারে ওই লিকেজ নিয়ে আমার কোনো সমস্যা নেই।

এ কথা আমরা সরকারের অংশ হয়ে বলি, কিন্তু আপনাদের বলি, আমাদের যে লিকেজ আছে সেটাও আমাদের হাতে। বন্ডেড ওয়্যারহাউজগুলো অনলাইনের আওতায় আনা সম্ভব হলে সুবিধাটির অপব্যবহার বন্ধ হবে বলে তিনি মত প্রকাশ করেন।

পোশাক শিল্পের সঙ্গে সম্পৃক্ত মন্ত্রী ও সংসদ সদস্যদের জন্য এ সংবর্ধনার আয়োজন করে ওই খাতের মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ। নিজের মালিকানাধীন বেক্সিমকো অ্যাপারেলসের সূত্রে অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত হন প্রধানমন্ত্রীর শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান। সংবর্ধনাপ্রাপ্তদের মধ্যে আরো ছিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

অনুষ্ঠানে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, আমি বাণিজ্যমন্ত্রী হয়েছি এক মাস হলো। আর আমি ৩৫ বছর ধরে গার্মেন্টস ব্যবসার সঙ্গে সম্পৃক্ত। আমি আমাদের হয়েই কথা বলব। আমি জানি ব্যবসায়ীরা কেমনভাবে ভুগছে, কারণ আমি নিজেই ভুগছি। অনেকে অনেক প্রত্যাশার কথা বলেছেন। আমার মনে হয় বড় একটি বিষয় হলো, ব্যাংকঋণ পরিশোধের সময়। এ সময় বৃদ্ধি করা খুব প্রয়োজন। আগামী বাজেটেই ব্যবসায়ীদের দাবি-দাওয়ার প্রতিফলন দেখা যাবে বলে মন্ত্রী আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

সংবর্ধনাপ্রাপ্তরা নিজেদের বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা ও বাণিজ্যমন্ত্রীর কাছে ঋণের সুদ কমানো, নগদ প্রণোদনা, ব্যবসায় টিকতে না পারলে বেরিয়ে যাওয়ার এক্সিট পলিসি, রাজস্বসংশ্লিষ্ট হয়রানি বন্ধসহ বিভিন্ন প্রত্যাশার কথা তুলে ধরেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here