রূপচর্চায় মিষ্টিকুমড়া

উত্তরের হিমেল হাওয়ায় চেপে হাজির শীত! আর সঙ্গে করে নিয়ে এসেছে নানা রঙের, নানা স্বাদের শাকসবজি। শীতের শাকসবজির ভেতর অন্যতম মিষ্টিকুমড়া। স্বাদে–গুণে অনন্য মিষ্টিকুমড়া খেতে অপছন্দ করে—এমন মানুষের সংখ্যা খুব কম। চোখের জন্য বিশেষ উপকারী এই সবজিকে পুষ্টিবিদেরা দিয়েছেন সুপার ফুড টাইটেল। তবে অনেকেরই অজানা যে এই সুপার ফুড ত্বক আর চুলের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের ‘সুপার রেমেডি’ও বটে।এতে রয়েছে ভিটামিন এ, সি, ই ও চার রকমের ভিটামিন বি (নায়াসিন, ফোলেট, রিবোফ্লাভিন, বি সিক্স)। আছে আলফা ও বিটা ক্যারোটিন এবং জিঙ্ক, পটাশিয়াম, ম্যাগনেশিয়ামের মতো খনিজ উপাদান। এটি সব ধরনের ত্বকের জন্যই উপযোগী। মিষ্টিকুমড়া ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি, ব্রণের সমস্যা প্রতিরোধ ও প্রতিকার করার পাশাপাশি সূর্যের আলো ও পরিবেশ দূষণের ফলে ত্বকের যে ক্ষতি হয়, তা সারিয়ে তুলতে পারে। এমনকি এটি বলিরেখা কমাতেও অনেক কার্যকর।

শুষ্ক ত্বকের জন্য

অতিরিক্ত শুষ্ক ত্বকের শুষ্কতা কমাতে পারে মিষ্টিকুমড়া। এটি ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখতে সহায়তা করে। এ জন্য দুই রকমের মাস্ক ব্যবহার করতে পারেন।
প্রথম মাস্ক: দুই চামচ মিষ্টিকুমড়ার পাল্প, আধা চামচ মধু, এক চামচ দুধ।
দ্বিতীয় মাস্ক: দুই চামচ মিষ্টিকুমড়ার পাল্প, দুই চামচ নারকেল তেল, এক চিমটি দারুচিনিগুঁড়া।

যে মাস্কটি আপনার পছন্দ, সেটির উপকরণ ভালো করে মিশিয়ে ১৫ থেকে ২০ মিনিট মুখে লাগিয়ে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

অ্যান্টিএজিং

মিষ্টিকুমড়া ভিটামিন সি ও বিটা ক্যারোটিনের খুব ভালো উৎস। ভিটামিন সি নিজে একটি শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। এটি কোলাজেন বৃদ্ধি করে ত্বকের স্থিতিস্থাপকতা বজায় রাখে। এ ছাড়া বিটা ক্যারোটিনের সঙ্গে এক হয়ে সূর্যের ইউভি রশ্মির ফলে ত্বকে যে বিরূপ প্রভাব পড়ে, তা কাটিয়ে উঠতে সহায়তা করে। ভিটামিন সি ত্বককে ফ্রি রেডিক্যালের হাত থেকে রক্ষা করে। এই ফ্রি রেডিক্যাল বলিরেখা এবং ত্বকের ক্যানসারের জন্য দায়ী।

ত্বকের বলিরেখা এবং ইউভি রশ্মিজনিত সমস্যার সমাধানে লাগবে কেবল দুই টেবিল চামচ মিষ্টিকুমড়ার পাল্প, এক চামচ ডিমের সাদা অংশ, আধা চামচ লেবুর রস এবং আধা চামচ মধু। মিশ্রণটি সপ্তাহে তিন দিন রাতে ঘুমানোর আগে ব্যবহার করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here