বিডি অটোকারস ও লিগ্যাসি ফুটওয়্যারের কারসাজি প্রমানিত, বড় জরিমানা

স্টাফ রিপোর্টার  কারসাজির মাধ্যমে বিডি অটোকারস লিমিটেড ও লিগ্যাসি ফুটওয়্যার লিমিটেডের শেয়ারের দর বৃদ্ধির অভিযোগ প্রমানিত হওয়ায় এক ব্যক্তি ও তিন প্রতিষ্ঠানকে ৫ কোটি ১০ লাখ টাকা জরিমানা করেছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. সাইফুর রহমান স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

গতকাল বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. এম খায়রুল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কমিশন সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। পাশাপাশি বিনিয়োগকারীদের স্বার্থ বিবেচনায় আজ থেকে বিডি অটোকারস ও লিগ্যাসি ফুটওয়্যারের শেয়ার বাধ্যতামূলক স্পটের পরিবর্তে মূল মার্কেটে লেনদেনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

কোম্পানি দুটির শেয়ার লেনদেনের ক্ষেত্রে আব্দুল কাইয়ূম অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটস, মঈনুল হক খান অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটস, আজিমুল ইসলাম অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটস ও কমার্স ব্যাংক সিকিউরিটিজ অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডের বিনিয়োগকারী মাহফুজ আলমের সংশ্লিষ্টতা খুঁজে পেয়েছে কমিশন।

আব্দুল কাইয়ূম অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটসের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা হচ্ছে আব্দুল কাইয়ূম, মরিয়ম নেছা ও মেসার্স কাইয়ূম অ্যান্ড সন্স।আব্দুল কাইয়ূম অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটস কমার্স ব্যাংক সিকিউরিটিজ অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্টের নারায়ণগঞ্জ শাখার গ্রাহক।

মঈনুল হক খান অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটসের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা হচ্ছে পদ্মা গ্লাস লিমিটেড, পদ্মা জোন্স অ্যান্ড কলার্ম লিমিটেড ইউনিট-২ ও রহমত মেটাল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড এবং আজিমুল ইসলাম অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটসের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা হচ্ছে আজিমুল ইসলাম, লুত্ফুন নেছা ইসলাম, নাবিলা ইসলাম, আজিজুল ইসলাম, আলিফ টেক্সটাইল মিলস ও বায়তুল খামুর। মঈনুল হক খান পদ্মা গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক।

আর আজিমুল ইসলাম অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটসের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট আজিজুল ইসলাম আলিফ গ্রুপের চেয়ারম্যান এবং তার ছেলে আজিমুল ইসলাম গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক। পুঁজিবাজারে আলিফ ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড ও আলিফ ম্যানুফ্যাকচারিং লিমিটেড নামে গ্রুপটির দুটি কোম্পানি তালিকাভুক্ত রয়েছে।

বিএসইসির তদন্ত প্রতিবেদন অনুসারে, মঈনুল হক খান অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটস ও কমার্স ব্যাংক সিকিউরিটিজ অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডের বিনিয়োগকারী মাহফুজ আলমের বিডি অটোকারসের শেয়ারের অস্বাভাবিক দরবৃদ্ধির ক্ষেত্রে সক্রিয় অংশগ্রহণ ছিল।

আর আব্দুল কাইয়ূম অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটস ও আজিমুল ইসলাম অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটসের বিডি অটোকারস ও লিগ্যাসি ফুটওয়ারের শেয়ারের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির ক্ষেত্রে সক্রিয় অংশগ্রহণ ছিল। এর মধ্যে আজিমুল ইসলাম অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটস বিএসইসির আইন ভঙ্গ করে কোম্পানি দুটির মোট শেয়ারের ১০ শতাংশেরও বেশি শেয়ার অধিগ্রহণ করেছে।

অন্যদিকে আলোচ্য তিন প্রতিষ্ঠান ও এক ব্যক্তি কমার্স ব্যাংক সিকিউরিটিজ অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্টের গ্রাহক হিসেবে বিডি অটোকারস ও লিগ্যাসি শেয়ারের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখলেও সিকিউরিটিজটি লেনদেনে যথাযথ তদারক না করার মাধ্যমে পরোক্ষভাবে সিরিয়াল ট্রেডিংয়ে সহায়তা করেছে।

সিকিউরিটিজ আইন ভঙ্গের মাধ্যমে বিডি অটোকারস ও লিগ্যাসি ফুটওয়ারের শেয়ারদর বৃদ্ধির সঙ্গে জড়িত থাকার কারণে আব্দুল কাইয়ূম অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটসকে ২ কোটি, মঈনুল হক খান অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটসকে ১০ লাখ, মাহফুজ আলমকে ১ কোটি ও আজিমুল ইসলাম অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটসকে ২ কোটি টাকা জরিমানা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিশন। আর কমার্স ব্যাংক সিকিউরিটিজ অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্টকে সতর্কপত্র ইস্যু করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, বিডি অটোকারস ও লিগ্যাসি ফুটওয়্যারের শেয়ার লেনদেনের ক্ষেত্রে সন্দেহজনক প্রবণতা পরিলক্ষিত হওয়ায় গত বছরের ১৬ আগস্ট অস্বাভাবিক শেয়ারদর বৃদ্ধির বিষয়টি তদন্ত করতে বিএসইসির সার্ভিল্যান্স বিভাগের উপপরিচালক মোহাম্মদ শামসুর রহমান ও সহকারী পরিচালক মো. শহীদুল ইসলামের সমন্বয়ে দুই সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়।

তদন্ত কমিটি গঠনের কয়েক মাস আগে থেকেই কোম্পানি দুটির দর অস্বাভাবিক হারে বাড়তে থাকে। এর মধ্যে দুই মাসে বিডি অটোকারসের শেয়ারদর ১১৮ টাকা থেকে ৪৮৫ টাকা এবং চার মাসে লিগ্যাসি ফুটওয়্যারের শেয়ারদর ৫৫ টাকা থেকে ২৭৫ টাকায় দাঁড়ায়। যা অস্বাভাবিক ছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here