বসুন্ধরা পেপার আইপিও প্রকল্প বাস্তবায়ন, বাড়বে মুনাফা

স্টাফ রিপোর্টার : বসুন্ধরা পেপার মিলস লিমিটেড আইপিও’র মাধ্যমে উত্তোলিত অর্থের সম্পূর্ণ ব্যবহার সম্পন্ন করেছে বরাদ্ধকৃত সময়ের আগেই। আইপিও’র  টাকায় ইউরোপীয় ব্র্যান্ড-নিউ অটোমেটেড টিস্যু মেশিনের সেট-আপ সফলভাবে বাস্তবায়ন করেছে কোম্পানিটি।  ডিএসই সূত্রে জানা যায়।

নিউ অটোমেটেড টিস্যু মেশিন দ্বারা বছরে ৩০ হাজার মেট্রিক টন বিভিন্ন গ্রেডের টিস্যু উৎপাদন ক্ষমতা বৃদ্ধি হবে ও পণ্য পোর্টফোলিও মধ্যে বৈচিত্র্য যোগ হবে প্রকল্প দ্বারা। বাণিজ্যিক উৎপাদন সফলভাবে ইতিমধ্যে শুরু করা হয়েছে।

জানা যায়, প্রতিস্থাপিত মেশিন দিয়ে বছরে ৩০ হাজার মেট্রিক টন টিস্যু উৎপাদন করা যাবে। নতুন এই মেশিনে উৎপাদিত পণ্যে আয় হবে বছরে ৪০০ কোটি টাকা এবং কর পরিশোধের পর মুনাফা হবে ৩৬ কোটি টাকা।

মেশিনটি প্রতিস্থাপন করার আগে বসুন্ধরা পেপার মিলস বছরে ১ লাখ ১৩ হাজার ৫০ মেট্রিক টন টিস্যু এবং পেপার উৎপাদন করতো।

বসুন্ধরা পেপার ২ কোটি ৬০ লাখ ৪১ হাজার ৬৬৭টি শেয়ার বিক্রি করে পুঁজিবাজার থেকে ১৯৯ কোটি ৯৯ লাখ ৯৯ হাজার ৯৫২ টাকা সংগ্রহ করে।

জানতে চাইলে বসুন্ধরা পেপার মিলসের নির্বাহী পরিচালক ও কোম্পানি সচিব এম নাসিমুল হাই বলেন, আইপিওর টাকা হাতে পাওয়ার আগেই আমরা নতুন ইউনিটের কাজ শুরু করেছি। আর আইপিওর টাকা পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই আমরা প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি আমদানি ও কারখানায় স্থাপনের কাজ শুরু করি।

এ কারণে নির্ধারিত সময়ের অনেক আগেই প্রকল্পের কাজ শেষ করা সম্ভব হয়েছে। টিস্যুর বাজারে আমরাই মার্কেট লিডার। প্রতি বছরই উল্লেখযোগ্য হারে এ বাজার বাড়ছে। ফলে ক্রমবর্ধমান বাজারের চাহিদার সঙ্গে সংগতি রেখে উৎপাদন সক্ষমতা বাড়াতে দ্রুত প্রকল্পের কাজ শেষ করার কোনো বিকল্প ছিল না। অন্যদিকে পণ্যের গুণগত মান বজায় রাখার চ্যালেঞ্জও ছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here