বন্ধ হলো নূরানি ডাইং অ্যান্ড সোয়েটার

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত নূরানি ডাইং অ্যান্ড সোয়েটার কোম্পানি বন্ধ হয়ে গেছে। তবে এটি মূল্য সংবেদনশীল তথ্য (পিএসআই) হলেও তা জানানো হয়নি।

সম্প্রতি ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) একটি প্রতিনিধি দল নূরানি ডাইংয়ের কারখানা এবং প্রধান কার্যালয় সরেজমিনে পরিদর্শন করে। সেখানে গিয়ে তারা কোম্পানির কারখানা এবং কার্যালয় বন্ধ পায়। যে কারনে ভিতরে প্রবেশ করতে পারেনি।

২০১৭ সালে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত হওয়ার পরে স্বল্প সময়ের ব্যবধানে এই দূরবস্থার মধ্যে নেমে আসল নূরানি ডাইং। ওই বছর কোম্পানিটির ব্যবসা সম্প্রসারনের জন্য প্রাথমিক গণপ্রস্তাবে (আইপিও) শেয়ারবাজার থেকে ৪৩ কোটি টাকা সংগ্রহ করা হয়।

অথচ তালিকাভুক্তির ৩য় অর্থবছরেই কোম্পানিটি লোকসানের কবলে পড়েছে। এ কোম্পানিটির ২০২০-২১ অর্থবছরের ৯ মাসে শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে ০.৯৫ টাকা। কিন্তু এখন আইপিওর অর্থ ব্যবহারের সুফল আসতে শুরু হওয়ার সময় হলেও বন্ধ হয়ে গেছে কোম্পানিটি।

জানা গেছে, নূরানি ডাইংয়ের প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক এসকে নুরুল আলম মারা যাওয়ার পরেই শোচণীয় অবস্থায় দিকে ধাবিত হতে থাকে কোম্পানিটি। তিনিই মূলত কোম্পানিটি পরিচালনা করতেন। তবে তার অবর্তমানে পর্ষদের অন্য পরিচালকেরা বা তার ছেলে-মেয়েরা সেটাকে এগিয়ে নিতে ব্যর্থ হয়েছেন।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত হওয়া নূরানি ডাইংয়ের পরিশোধিত মূলধনের পরিমাণ ১২২ কোটি ৬৩ লাখ টাকা। এরমধ্যে শেয়ারবাজারের বিভিন্ন শ্রেণীর (উদ্যোক্তা/পরিচালক ব্যতিত) বিনিয়োগকারীদের মালিকানা ৬৯.০৭ শতাংশ।

কোম্পানিটির সোমবার, ০৯ আগস্ট লেনদেন শেষে শেয়ার দর দাড়িঁয়েছে ১১.২০ টাকায়। যে শেয়ারটির দর আগের দিন ছিল ১০.২০ টাকায়। অর্থাৎ সোমবার শেয়ার দর বেড়েছে ১ টাকা বা ৯.৮০ শতাংশ।

সূত্র : বিজনেস আওয়ার

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here