বঙ্গবন্ধু কাপ টি-টোয়েন্টিতে আজকের খেলা

মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক। বঙ্গবন্ধু কাপে তার দল খুলনায় রয়েছেন সাবেক অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। আজ তাদের মুখোমুখি হতে যাচ্ছে দেশের ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবালের দল ফরচুন বরিশাল।  নেতৃত্বের অভিজ্ঞতায় সাকিব-মাহমুদুল্লাহর চেয়ে অনেকটা পিছিয়ে। তাই বলার অপেক্ষা রাখে না চার-ছক্কার লড়াইয়ে বরিশালের জন্য কঠিন পরীক্ষা অপেক্ষা করছে আজ সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায়।  তার আগে উদ্বোধনউ ম্যাচে দেশের আরেক সাবেক অধিনায়ক মুশফিকুর রহীমের দল বেক্সিমকো ঢাকার মুখোমুখি হবে তরুণ নাজমুল হোসেন শান্তর মিনিস্টার রাজশাহী। ম্যাচটি মিরপুর শেরেবাংলা মাঠে শুরু হবে দুপুর দেড়টায়। গতকাল মিরপুরে একাডেমির মাঠে অনুশীলনে ঘাম ঝরায় আসরের চার দল। আজ মাঠে ফিরছেন সাকিব। গেল বছর সেপ্টেম্বরে শেষবার মাঠে নেমেছিলেন তিনি।তাই এই আসরের দিকে তাকিয়ে দেশের ক্রিকেট ভক্তকূল। তবে এই চার-ছক্কার লড়াই দর্শকদের উপভোগ করতে হবে বাড়িতে বসেই। কারণ, করোনা মহামারির কারণে দর্শকদের মাঠে প্রবেশের অনুমতি নেই।

আসরে কাগজে-কলমে শক্তিশালী দল জেমকন খুলনা। অভিজ্ঞতার সঙ্গে দলটির আছে তারুণ্যের সমন্বয়। মাঠে নামার আগে তাই অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহর কণ্ঠেও আত্মবিশ্বাস।  তবে তিনি সাবধানীও। মাহমুদুল্লাহ  বলেন, ‘কাগজে-কলমে হয়তো আমাদের দলকে অনেক শক্তিশালী মনে হচ্ছে। তবে আমি সবসময়ই একটা কথা বিশ্বাস করি যে মাঠের পারফরম্যান্সটা সবসময়ই মুখ্য। আপনি যত বড় নামই থাকেন, যত ভালো ক্রিকেটারই হন। দিনশেষে আপনাকে মাঠে এটা প্রমাণ করতে হবে। তো সেক্ষেত্রে বলবো যে, অবশ্যই আমাদের প্রমাণের অনেক কিছু আছে। যেহেতু ডমেস্টিকে বেস্ট প্লেয়ারদের মধ্যে আমাদের প্রতিযোগিতাটা। তো সেটা প্রমাণের লক্ষ্যেই আমরা নামবো ইনশাআল্লাহ।’

সাকিবকে পেয়ে দারুণ উচ্ছ্বসিত রিয়াদ। তিনি বলেন, ‘ফিলিং ইজ গুড। আমরা সবাই জানি সাকিবের গুরুত্ব কতটুকু। সেটা আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে হোক বা ঘরোয়াতে। সেক্ষেত্রে অবশ্যই আমরা সবাই খুশি ওর জন্য যে ও ব্যাক করেছে এবং ও আমাদের দলেই খেলছে।’

অন্যদিকে নিজ দল বরিশালে তেমন তারকা ক্রিকেটার না থাকলেও তামিমের আত্মবিশ্বাস দারুণ। দেশ সেরা ওয়ানডে ওপেনার ব্যাট হাতে যে কোনো  সময় দলকে জয় এনে দিতে পারেন সেটা সবার জানা। তিনি বলেন, ‘ আমাদের দলে হয়তো খুব নামি দামি প্লেয়ার নেই, তবে ক্রিকেটটাই এরকম যে দেখেন সবাই যদি কাগজে কলমে শক্তিশালী হয়ে ম্যাচ জিতে যেতো বা টুর্নামেন্ট জিতে যেতো তাহলে অন্য কথা ছিল। আমি নিশ্চিত যে প্লেয়ারগুলো আছে আমার, তারা সবাই ক্যাপাবল। তারা কোনো না কোনো জায়গায় নিজেকে প্রমাণ অবশ্যই করেছে। আমার বিশ্বাস আছে যে তারা ভালো করবে। একটাই ব্যাপার যে তারা বয়সে তরুণ।’

ভালো শুরু চান মুশফিক ছাড় দেবেন না শান্ত
আজ উদ্বোধনী ম্যাচে ঢাকার অধিনায়ক মুশফিককে মোকাবিলা করবে তরুণ শান্ত। তবে নেতৃত্বে নতুন হলেও এরই মধ্যে যোগ্যতার প্রমাণ রেখেছেন তিনি। সবশেষ বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপ ওয়ানডে টুর্নামেন্টে তার দল ফাইনাল খেলেছিল।  মুশফিক বলেন, ‘আমরা তো সবাই চাই খুব ভালো একটা টুর্নামেন্ট হবে। এই বছরই প্রথম লোকাল টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট হচ্ছে। খুবই রোমাঞ্চিত। আশা করছি বেক্সিমকো ঢাকার হয়ে যাতে খুব ভালো একটা শুরু করতে পারি এবং সেটা যেন শেষ করতে পারি। দেখেন প্রত্যেক টুর্নামেন্টেই একটা সুযোগ থাকে। লাস্ট দুইটা টুর্নামেন্ট যেটা খেলেছি বিপিএল এবং প্রেসিডেন্টস কাপে হয়তো বা একটা হার্ডেলের কারণে পারি নাই। একই সঙ্গে আমার মনে হয় এটা একটা কনসিসটেন্সি যে আমি যে দুইটা টুর্নামেন্টে খেলেছি দুইটাই ফাইনাল পর্যন্ত যেতে পেরেছি। আমাদের প্রথম লক্ষ্য থাকবে  টপ ফোরে যাতে যেতে পারি। অবশ্যই তারপর যাতে ফাইনালটা খেলতে পারি। এরপর যেটা বললেন, আল্টিমেটলি লক্ষ্য তো হচ্ছে চ্যাম্পিয়নশিপ।’ নাজমুল হোসেন শান্তর দল কাগজে-কলমে তেমন শক্তিশালী নয়। তবুও তরুণ এই অধিনায়ক ছাড় দিতে রাজি নয়। তিনি বলেন, ‘মুশফিক ভাইয়ের সঙ্গে বেশ কয়েকটা ইনিংসে ব্যাটিং করার সুযোগ ছিল। অনেক কিছুই জানা আছে। যদি আমাদের বোলাররা পরিকল্পনা অনুযায়ী বল করতে পারে অবশ্যই মুশফিক ভাইকে তাড়াতাড়ি আউট করার মতো সক্ষমতা রাখে। আগে এই জিনিসটা নিয়ে অনেক চিন্তা করতাম আমরা সবাই। এখন সবাই সবার জায়গা থেকে ভালোভাবে প্রস্তুত।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here