পুঁজিবাজার সংশ্লিষ্ট চেীদ্দ ব্যক্তি পেলেন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন

স্টাফ রিপোর্টার :  আসন্ন ৩০ ডিসেম্বর ২০১৮ অনুষ্ঠিতব্য জাতীয় সংসদ নির্বাচন ২০১৮ তে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি সংশ্লিষ্ট ১৪ জন আওয়ামী লীগ থেকে মনোয়ন পেয়েছেন বলে জানা যায়।

সালমান এফ রহমান: সংসদ নির্বাচনে তিনি ঢাকা-১ আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোয়ন পেয়েছেন।  বাংলাদেশের স্বাধীনতার পরপরই যাত্রা শুরু করা বেক্সিমকো গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সালমান ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি ছিলেন নব্বই দশকের মাঝামাঝিতে।

ওষুধ, সিরামিক, বস্ত্র, জ্বালানি, তথ্য প্রযুক্তি খাতের ব্যবসা রয়েছে এই গ্রুপের, রয়েছে গণমাধ্যমও। বেক্সিমকো গ্রুপের বেশ কয়েকটি কোম্পানি পুঁজিবাজারেও তালিকাভুক্ত।

২০০১ সালের নির্বাচনে এই আসনে নৌকার টিকেটে নির্বাচনে করে তার আত্মীয় তৎকালীন বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার নাজমুল হুদার কাছে পরাজিত হন সালমান রহমান। আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে আসার আগে নিজের গড়া ‘সমৃদ্ধ বাংলাদেশ আন্দোলন’ থেকে ১৯৯৬ সালের নির্বাচনে ধানমণ্ডি এলাকা থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেও জামানত হারিয়েছিলেন সালমান।

একে আবদুল মোমেন: চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) চেয়ারম্যান আবদুল মোমেন সিলেট-১ আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোয়ন পেয়েছেন। তিনি এই প্রথম সংসদ নির্বাচন করছেন।

সাবের হোসেন চৌধুরী: তিনি ঢাকা-৯ আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোয়ন পেয়েছেন। ১৯৯৬ সালের নির্বাচনে তিনি প্রথম সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। পরে ২০০৮ ও ২০১৪ এর নির্বাচনেও তিনি সংসদ সদস্য হোন। বর্তমানে তিনি জিএসপি ফাইন্যান্স বাংলাদেশ লি: এর পরিচালক হিসেবে রয়েছেন।

ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন: তিনি কুমিল্লা-৩ আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোয়ন পেয়েছেন। ২০১৪ সালে আওয়ামী লীগ থেকে মনোয়ন পেয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন।

বর্তমানে তিনি এশিয়া ইন্স্যুরেন্সের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়া তিনি সাউথইস্ট ব্যাংকের উদ্যোক্তা হিসেবে রয়েছেন। ব্যাংকটির উদ্যোক্তা পরিচালক এবং চেয়ারম্যান হিসেবে এবং ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) পরিচালক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছিলেন।

আবদুস সালাম মূর্শেদী: তিনি খুলনা -৪ আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোয়ন পেয়েছেন। আড়াই মাস আগে তিনি এই আসনে উপ-নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন এই শিল্পপতি। খুলনা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম মোস্তফা রশিদী সুজা গত ২৫ জুলাই মারা গেলে খুলনা-৪ (রূপসা-দিঘলিয়া-তেরখাদা) আসনটি শূন্য হয়।

সেপ্টেম্বরের উপ-নির্বাচনে আওয়ামীলীগের প্রার্থী হন সালাম মূর্শেদী । আর কোনো প্রার্থী না থাকায় ফাঁকা মাঠেই গোল দেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের সাবেক এই ফুটবলার।এনভয় টেক্সটাইলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

মোরশেদ আলম: তিনি নোয়াখালী-২ আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোয়ন পেয়েছেন। তিনি ২০১৪ সালে এই আসন থেকে এমপি নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি বর্তমানে ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্সের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

আহসানুল ইসলাম টিটু: সন্ধানী লাইফ ইন্স্যুরেন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আহসানুল ইসলাম টিটু টাঙ্গাইল-৬ আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোয়ন পেয়েছেন। সংসদ নির্বাচনে এবারই তিনি প্রথম মনোয়ন পেলেন।

নাজমুল হাসান পাপন: বেক্সিমকো ফার্মার ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজমুল হাসান পাপন কিশোরগঞ্জ-৬ আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোয়ন পেয়েছেন। ২০০৯ সাল থেকে তিনি এই আসন থেকে সংসদ সদস্য হিসেবে রয়েছেন।

একেএম এনামুল হক শামীম: ন্যাশনাল ব্যাংকের স্বতন্ত্র পরিচালক এনামুল হক শামীম শরিয়তপুর-২ আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোয়ন পেয়েছেন। এবারই তিনি প্রথম মনোয়ন পেলেন।

এবাদুল করিম বুলবুল: বিকন ফার্মার ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং কোহিনূর কেমিক্যালের পরিচালক এবাদুল করিম ব্রাক্ষণবাড়ীয়া-৫ আসনে আওয়ামী লীগের মনোয়ন পেয়েছেন।

সেলিমা আহমাদ মেরি: নিটল নিলয় গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা আহমাদ কুমিল্লা-২ আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোয়ন পেয়েছেন। নিটল নিলয় গ্রুপের দুটি প্রতিষ্ঠান নিটল ইন্স্যুরেন্স ও নিলয় সিমেন্ট পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত রয়েছে।

কাজী নাবিল আহমেদ: জেমিনি সি ফুডের পরিচালক কাজী নাবিল যশোর-৩ আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোয়ন পেয়েছেন।

মঞ্জুর হোসেন: ফরিদপুর-১ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন সাবেক সচিব ও বর্তমানে রূপালী ব্যাংকের চেয়ারম্যান মঞ্জুর হোসেন।

তাহজিব আলম সিদ্দিকী: ঝিনাইদহ-২ আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোয়ন পেয়েছেন তাহজীব আলম সিদ্দিকী। গতবার স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নৌকার প্রার্থীকে হারিয়ে প্রথমবারের মতো সংসদ নির্বাচিত সদস্য হন তাহজীব। তিনি ডোরিন পাওয়ারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here