শিগগিরই শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ভালো কিছু করা হবে : এক্সপ্রেস ইন্স্যুরেন্সের সিইও

মোহাম্মদ তারেকুজ্জামান : বীমা খাতের সদ্য তালিকাভুক্ত কোম্পানি এক্সপ্রেস ইন্স্যুরেন্সের পরিচালনা পর্ষদ শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ‘নো’ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। ২০১৯ সালের আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে সোমবার, ১৪ সেপ্টেম্বর এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে কোম্পানির পর্ষদ।

তালিকাভুক্তির প্রথম বছর শেয়ারহোল্ডারদের কোনো লভ্যাংশ না দেয়ার পেছনে কারণ জানিয়ে কোম্পানির সিইও কে এম সাইদুর রহমান স্টক টাইমসকে বলেন, করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় পর্ষদ কোন লভ্যাংশ না দেওয়ার সুপারিশ করেছে। ২০১৯ সালের হিসাব বছরে সাধারণ শেয়ারহোল্ডারদের কোন অংশগ্রহণ কোম্পানিতে ছিলনা। এছাড়া লভ্যাংশ না দেওয়ার সিদ্ধান্ত করোনা পরিস্থিতিতে কোম্পানির আর্থিক ভিত্তি শক্তিশালী করবে, যা প্রকারান্তে ভবিষ্যতে শেয়ারহোল্ডারদেরই মুনাফা হবে।

তিনি আরও বলেন, পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) সঙ্গে আমাদের আজকে (১৫ সেপ্টেম্বর) এ ব্যাপারে মিটিং হয়েছে। কমিশন আমাদেরকে শেয়ারহোল্ডারদের বিষয়টি সুবিবেচনায় রাখতে বলেছে। তাই শেয়ারহোল্ডারদের জন্য আমরা শিগগিরই ভালো কিছু করার চেষ্টা করছি।

এক্সপ্রেস ইন্স্যুরেন্স সূত্রে জানা যায়, ২০১৯ সালে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ৩১ পয়সা। আর ২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ১৮ টাকা ৪ পয়সায়। এক্সপ্রেস ইন্স্যুরেন্সের বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) আগামী ১৫ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে।

উল্লেখ্য, এক্সপ্রেস ইন্স্যুরেন্সের শেয়ার লেনদেন গত ২৪ আগস্ট ‘এন’ ক্যাটাগরিতে শুরু হয়েছে। এর আগে গত ১৮ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (এসইসি) সভায় কোম্পানিটিকে আইপিওর মাধ্যমে অর্থ উত্তোলনের অনুমোদন দেওয়া হয়। কোম্পানিটি ২৬ কোটি ৭ লাখ ৯০ হাজার টাকা উত্তোলনের জন্য শেয়ারবাজারে ২ কোটি ৬০ লাখ ৭৯ হাজার সাধারণ শেয়ার ছেড়েছে।

সূত্র জানায়, ডিএসইতে এক্সপ্রেস ইন্স্যুরেন্সের ট্রেডিং কোড “EIL”। ডিএসইতে কোম্পানির ট্রেডিং কোড ২৫৭৪৮। গত ১৮ আগস্ট কোম্পানিটির লটারিতে বরাদ্দপ্রাপ্ত শেয়ার বিনিয়োগকারীদের বিও হিসাবে জমা হয়েছে।

এর আগে গত ২৩ জুলাই কোম্পানিটি লটারির ড্র অনুষ্ঠান সম্পন্ন করেছে। গত ২ জুলাই কোম্পানির আইপিও আবেদন সম্পন্ন হয়েছে।

কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব পালন করেছে এএএ ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট, আইআইডিএফসি ক্যাপিটাল এবং বিএলআই ক্যাপিটাল লিমিটেড।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here