থাইরয়েড থেকে বাঁচতে কী খাবেন আর কী খাবেন না

আজকাল থাইরয়েডে ভুগছেন বেশিরভাগ নারীরা। সমীক্ষা অনুযায়ী, পুরুষদের তুলনায় নারীদের থাইরয়েড হওয়ার সম্ভাবনা ৩ গুণ বেশি। আর এই কারণে নারীদের ওজন দ্রুত বেড়ে যায়। এছাড়াও, তাদের পিরিয়ড এবং গর্ভাবস্থা সম্পর্কিত  নানা সমস্যা দেখা দেয়। প্রতিদিন নির্দিষ্ট নিয়ম মেনে ওষুধ খেতে হয়।

থাইরয়েডকে সাইলেন্ট কিলারও বলা হয়। কারণ এটি অন্যান্য অনেক রোগেকে প্রশ্রয় দেয় আপনার অজান্তে। তবে থাইরয়েড নিয়ন্ত্রণ করতে চাইলে যদি ওষুধ না খেতে চান তবে কিছু নিয়ম মেনে চলতে হবে। আয়ুর্বেদিক চিকিৎসায় নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারেন থাইরয়েডের সমস্যা।

থাইরয়েড রোগীদের খাবার:

১.থাইরয়েড রোগীদের প্রতিদিন এক চা চামচ ফ্ল্যাক্স পাউডার খাওয়া উচিত। এটি থাইরয়েড থেকে মুক্তি দেয়।

২. ধনিয়া ভিজিয়ে রেখে ওই পানি সারারাত রেখে দিন তারপর সকালে পান করুন।

৩.সকালে খালি পেটে এক চামচ মধুতে ১০ গ্রাম আমলার গুঁড়ো খেতে পারেন। প্রতিদিন খেলে ১০ থেকে ১২ দিনের মধ্যে ফলাফল পাবেন।

৪.থাইরয়েড রোগীর প্রতিদিন দুধ খাওয়া উচিত।

যা খাওয়া উচিত না:

১.থাইরয়েড রোগীদের সয়াবিন খাওয়া উচিত না।

২.তৈলাক্ত, মশলাদার এবং উচ্চ ক্যালরিযুক্ত খাবার খাওয়া উচিত নয়।

৩.মিষ্টি  না খাওয়াই ভালো।

৪.থাইরয়েড রোগীদের ব্রকলি এবং পরিশোধিত খাবার মোটেই খাওয়া উচিত নয়।

৫.সামুদ্রিক খাবার এবং লাল মাংস খাওয়া উচিত নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here