ছোট রোগের সহজ সমাধানে যা করবেন

সর্দি, কাশি, ঠাণ্ডা, বদহজম, গলা ব্যথা, কোষ্ঠকাঠিন্যের মতো ছোটখাটো অসুখে প্রতিদিনের রান্নায় ব্যবহৃত মসলাতেই মিলবে উপকার।

খাবারের রূপ, রস ও গন্ধে পরিবর্তন আনতে মসলার জুড়ি নেই। তাইতো যুগ যুগ ধরে আমাদের রান্নাঘরে ব্যবহৃত হয়ে আসছে বাহারি সব মসলা। যেমন তার নাম, তেমনি গুণেরও কমতি নেই এসব মসলার।

আয়ুর্বেদশাস্ত্রেও মসলা নিয়ে আগ্রহের কমতি নেই। এখনো চলছে মসলার গুণ নিয়ে চুলচেরা গবেষণা। এসব গবেষণায় দেখা গেছে, মসলা শুধু খাবারের স্বাদ ও গন্ধেই যে ভিন্নতা আনে তা নয়, বরং স্বাস্থ্যের জন্যও দারুণ উপকারী।

দারচিনি

রান্নাঘরে থাকা এই মসলাটির গুণ আমরা কমই জানি। রক্তে শর্করার মাত্রা ও কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে দারচিনি। কোনো কারণে পেট ফাঁপা হলে খাদ্যতালিকায় দারচিনি রাখুন। উপকার মিলবে। প্রতিদিন সকালে দুধের মধ্যে দারচিনির গুঁড়া মিশিয়ে খেতে পারেন। সর্দি, কাশি ও ঠাণ্ডায় উপকার পাবেন। দারচিনি চিবিয়েও খেতে পারেন। মুখে রুচি বৃদ্ধি পাবে। অনেকের মুখে দুর্গন্ধ হয়। তারা এক ফালি দারচিনি মুখে নিয়ে চিবোতে পারেন। গন্ধ দূর হবে।

হলুদ

হলুদে রয়েছে কারকিউমিন, অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, অ্যান্টি-ভাইরাল, অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল, অ্যান্টি-কারসিনোজেনিক, অ্যান্টি-মিউটাজেনিক, অ্যান্টি-ইনফ্লামেটরি নামের উপাদান যা প্রদাহরোধী গুণসমৃদ্ধ। এগুলো শক্তিশালী অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে। অস্টিও ও রিউম্যাটয়েড আর্থ্রাইটিসে ভোগা রোগীরা প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় হলুদ রাখলে উপকার পাবেন। হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতেও সাহায্য করে হলুদ। হলুদে থাকা বিভিন্ন উপাদান পেটের অম্ল ও পেটে বায়ু হওয়া বা জন্ডিসের মতো নানা অসুখ থেকে দূরে রাখে।

আদা

বদহজমজনিত সমস্যা দূর করতে এবং হজমশক্তি বৃদ্ধিতে আদা অত্যন্ত উপকারী। শারীরিক পরিশ্রমজনিত ব্যথা কমাতেও সাহায্য করে এটি। আদা বমিভাব কমায়, ঠাণ্ডা থেকেও উপকার দেয়।

মরিচ

কাঁচা মরিচে প্রচুর ভিটামিন ‘সি’ থাকে। নিয়মিত কাঁচা মরিচ পাতে রাখলে সর্দি থেকে মুক্তি মেলে। যাঁদের দ্রুত ওজন কমে যায় তাঁরা ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে কাঁচা মরিচ খেতে পারেন। এ ছাড়া রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণেও সাহায্য করে কাঁচা মরিচ।

গোলমরিচ

গোলমরিচ হজমের পক্ষে খুব সহায়ক। সর্দি-কাশি সারাতে বা মেটাবলিজম বাড়াতেও এর জুড়ি নেই। নিয়মিত গোলমরিচ খেলে ব্রণ ওঠা, চুলকানিসহ ত্বকের নানা সমস্যায় উপকার পাওয়া যায়।

জিরা

হজমের সমস্যায় জিরা উপকারী। এক গ্লাস পানিতে এক চিমটি আস্ত জিরা সারা দিন ভিজিয়ে রেখে পরদিন সকালে পানিটুকু ছেঁকে খালি পেটে পান করুন। হজমের সমস্যা দূর হবে।

ধনে

ধনেপাতা হজমশক্তি ভালো রাখে। লিভারের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে ও পেট পরিষ্কার রাখতে দারুণ সাহায্য করে ধনের ডায়েটারি ফাইবার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here