চলতি মাসে ১৮ কোম্পানির দর বৃদ্ধির কারণ খুজেঁ পায়নি ডিএসই

শেয়ারবাজারের চলমান উত্থানে মৌলভিত্তি কোম্পানির সঙ্গে সঙ্গে দূর্বল কোম্পানির শেয়ার দরও নিয়মিত বাড়ছে। যেগুলোতে বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগকে ঝুঁকিপূর্ণ মনে করছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ কর্তৃপক্ষ। এমন তালিকায় চলতি মাসে উঠে এসেছে ১৮টি কোম্পানি। যেগুলোর বিষয়ে বিনিয়োগকারীদেরকে সচেতন করে তথ্য প্রকাশ করেছে ডিএসই কর্তৃপক্ষ। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সন্দেহজনক দর বৃদ্ধি পাওয়া কোম্পানির ক্ষেত্রে নিয়মিত কারণ অনুসন্ধানের চেষ্টা করে থাকে ডিএসই কর্তৃপক্ষ। তবে শেয়ারবাজারের চলমান উত্থানে এ জাতীয় কোম্পানির সংখ্যা কিছুটা বেড়ে গেছে। যাতে করে ডিএসইর তদন্তে গত কয়েক মাস ধরে কারণ ছাড়া দর বৃদ্ধি পাওয়া দূর্বল কোম্পানি বেড়িয়ে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় চলতি মাসে (২২ আগস্ট পর্যন্ত) পাওয়া গেছে এমন ১৮টি কোম্পানি।

কোম্পানিগুলো হচ্ছে- পেপার প্রসেসিং অ্যান্ড প্যাকেজিং, মেঘনা পেট ইন্ডাস্ট্রিজ, মেঘনা কনডেন্স মিল্ক, রিং শাইন টেক্সটাইল, ফারইস্ট ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট, মেট্রো স্পিনিং, আনলিমা ইয়ার্ন ডাইং, শ্যামপুর সুগার মিলস, সিভিও পেট্রোকেমিক্যাল, স্টাইলক্রাফট, এইচআর টেক্সটাইল, সাফকো স্পিনিং, বিচ হ্যাচারি, ন্যাশনাল হাউজিং ফাইন্যান্স, মিরাকল ইন্ডাস্ট্রিজ, জেমিনি সী ফুড, সেন্ট্রাল ফার্মাসিউটিক্যালস ও একটিভ ফাইন কেমিক্যালস।

এরমধ্যে সর্বশেষ প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ি ১০টি কোম্পানির ব্যবসায় লোকসানে হয়েছে। এ হিসেবে বর্তমান ব্যবসায়িক অবস্থা বিবেচনায় কোম্পানিগুলো থেকে বিনিয়োগ ফেরত পাওয়া যাবে না। যে কারনে কোম্পানিগুলোর মূল্য-আয় অনুপাত (পিই) শূন্য। এছাড়া বাকি কোম্পানিগুলোর মধ্যে অধিকাংশ থেকে বিনিয়োগ ফেরত পেতে অপেক্ষা করতে হবে অনেক বছর।

তারপরেও এই কোম্পানিগুলোর শেয়ার দর অস্বাভাবিক হারে বাড়ছিল। যার কারণ খুজঁতে অনুসন্ধান করে ডিএসই। এরই ধারাবাহিকতায় কোম্পানিগুলোর কাছে কারণ জানতে চায়। তবে সবগুলো কোম্পানির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, সাম্প্রতিক অস্বাভাবিক দর বৃদ্ধির পেছনে অপ্রকাশিত কোনো রকম মূল্য সংবেদনশীল তথ্য নেই।

কোম্পানিগুলোর মধ্যে- গত ২২ আগস্ট দর বৃদ্ধির কোন কারন নেই বলে জানিয়েছে পেপার প্রসেসিং অ্যান্ড প্যাকেজিং, মেঘনা পেট ইন্ডাস্ট্রিজ, মেঘনা কনডেন্স মিল্ক, রিং শাইন টেক্সটাইল, ফারইস্ট ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট, মেট্রো স্পিনিং ও আনলিমা ইয়ার্ন ডাইং কর্তৃপক্ষ। এর আগে ১৮ আগস্ট শ্যামপুর সুগার মিলস, সিভিও পেট্রোকেমিক্যাল, স্টাইলক্রাফট ও এইচআর টেক্সটাইল, ১৬ আগস্ট সাফকো স্পিনিং, বিচ হ্যাচারি ও ন্যাশনাল হাউজিং ফাইন্যান্স, ১১ আগস্ট মিরাকল ইন্ডাস্ট্রিজ, ৯ আগস্ট জেমিনি সী ফুড, ২ আগস্ট সেন্ট্রাল ফার্মাসিউটিক্যালস ও একটিভ ফাইন কেমিক্যালসের পক্ষ থেকে দর বাড়ার কারণ নেই বলে জানানো হয়েছে।

নিম্নে কোম্পানিগুলোর শেয়ার দর ও ব্যবসা থেকে বিনিয়োগ ফেরতের সময় তুলে ধরা হল

কোম্পানির নাম ২৩ আগস্টের শেয়ার দর ফেরত পেতে লাগবে
পেপার প্রসেসিং অ্যান্ড প্যাকেজিং ১৭৩.৯০ টাকা ২৯৬ বছর
সেন্ট্রাল ফার্মাসিউটিক্যালস ১৯.৯০ টাকা ২৪৯ বছর
আনলিমা ইয়ার্ন ডাইং ৪৮.১০ টাকা ১৬৪ বছর
একটিভ ফাইন কেমিক্যালস ২৩.৪০ টাকা ১০৩ বছর
রিং শাইন টেক্সটাইল ১৪.৯০ টাকা ৫১ বছর
মেট্রো স্পিনিং ৩০.২০ টাকা ৩৭ বছর
এইচআর টেক্সটাইল ৭৭.৭০ টাকা ৩২ বছর
ন্যাশনাল হাউজিং ফাইন্যান্স ৬৬.৩০ টাকা ২৬ বছর
মেঘনা পেট ইন্ডাস্ট্রিজ ২৬.৫০ টাকা লোকসানে
মেঘনা কনডেন্স মিল্ক ২১.৫০ টাকা লোকসানে
ফারইস্ট ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট ৯.৮০ টাকা লোকসানে
শ্যামপুর সুগার মিলস ৮৭.৪০ টাকা লোকসানে
সিভিও পেট্রোকেমিক্যাল ১৬১.৮০ টাকা লোকসানে
স্টাইলক্রাফট ১৮৪ টাকা লোকসানে
সাফকো স্পিনিং ৩০.৮০ টাকা লোকসানে
বিচ হ্যাচারি ২৮.৯০ টাকা লোকসানে
মিরাকল ইন্ডাস্ট্রিজ ৪৩.১০ টাকা লোকসানে
জেমিনি সী ফুড ২১১ টাকা লোকসানে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here