গ্রামীণফোনের ব্যবসা শ্লথ হলে সরকারেরই ক্ষতি : অর্থমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার : গ্রামীণফোন দেশের বড় করদাতাদের একটি। এ কোম্পানিটির ব্যবসা শ্লথ হয়ে পড়লে সরকারেরই ক্ষতি। কারণ তাদের দেওয়া রাজস্বের পরিমাণ কমে যাবে। তাই এমন কোনো কিছু করা হবে না যাতে গ্রামীণফোনের ব্যবসার ক্ষতি হয়।

বুধবার, ২৫ সেপ্টেম্বর সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রীসভা কমিটির বৈঠক শেষে অনুষ্ঠিত ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের একটি প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এ কথা বলেন। এ সময় তিনি আবারও আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে গ্রামীণফোনের কাছে বিটিআরসির দাবিকৃত বকেয়া রাজস্ব সংক্রান্ত জটিলতা অবসানের কথা বলেন।

জানা গেছে, এদিন সকালে গ্রামীণফোন ও রবির কাছে পাওনা সংক্রান্ত ইস্যুতে একটি বৈঠক হয়েছে। বৈঠকে সংশ্লিষ্ট স্টেকহোল্ডাররা উপস্থিত ছিলেন। তবে ওই বৈঠকে কোনো সিদ্ধান্ত হয়েছে কি-না সে বিষয়ে মুখ খোলেননি তিনি। এ বিষয়ে তিনি বলেন, আলোচনা এখনো চলমান। আলোচনায় সমঝোতার বিষয়টি চুড়ান্ত হলে তা গণমাধ্যমকে জানানো হবে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, গ্রামীণফোন একটি হিসাবে দেখিয়েছে তারা ১ টাকা আয় করলে তার ৫৩ পয়সাই নানাভাবে সরকারের ঘরে যায়। তাই তারা যত বেশি ব্যবসা করবে, ততই আমাদের (সরকারের) লাভ। আমরা এই সুযোগ নেব না কেন। এটি বুঝতে হবে, যদি আমরা তাদের ব্যবসা শ্লথ করে ফেলি, গতি কমিয়ে দেই তাহলে আমাদের রাজস্ব আহরণে বড় ধরনের প্রভাব পড়বে। তাই এ কাজটি আমরা কোনোভাবেই করবো না। আমরা চাই একটি স্বাভাবিক সুন্দর সম্পর্ক।

তিনি বলেন, আলোচনার মাধ্যমে সমস্যার সমাধানে আমরা সবাই নীতিগতভাবে একমত হয়েছি। আমরা ঠিক করেছি কেউ কারো বিরুদ্ধে মামলায় যাবো না। এখন পর্যন্ত আলোচনা সফলভাবে এগুচ্ছে। আমরা আশা করছি, আলোচনার মাধ্যমে কোর্টকাছারির  বাইরে দীর্ঘ দিনের পুঁঞ্জিভুত সমস্যাটির সমাধান করা যাবে।

বৈঠকে গ্রামীণফোনের কাছে পাওনা মূল অর্থের বাইরে এর উপর আরোপিত সুদ মওকুফ করে দেওয়ার বিষয়ে সরকার রাজী হয়েছে-এমন প্রসঙ্গ তোলা হলে অর্থমন্ত্রী সুনির্দিষ্ট কোনো মন্তব্য করেননি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here