ক্যাবল রপ্তানির প্রক্রিয়ায় বিবিএস ক্যাবলস

দেশের অন্যতম শীর্ষ ক্যাবল উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান বিবিএস ক্যাবলস লিমিটেড বিদেশে পণ্য রপ্তানি করার পরিকল্পনা নিয়েছে। এর অংশ হিসেবে জার্মানী ও নেদারল্যান্ডে পাঠানো ক্যাবলস মান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত আনুষ্ঠানিকভাবে মানসনদ কোম্পানির হাতে এসে পৌঁছায়নি। মানসনদ পাওয়ার পর ক্যাবলস রপ্তানির পরবর্তী প্রক্রিয়া শুরু করা হবে। বিবিএস ক্যাবলসের চেয়ারম্যান প্রকৌশলী আবু নোমান হাওলাদার এই তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেছেন, বিবিএস ক্যাবলস লিমিটেড পণ্য উৎপাদনের জন্য যে মেশিনারিজ ও কাঁচামাল ব্যবহার করে তার সবই আন্তর্জাতিক মানের। তাদের উৎপাদিত ক্যাবলসও সর্বোচ্চ মানের। তাদের অনেকগুলো আন্তর্জাতিক মানসনদ আছে। জার্মানিতে পরীক্ষায় বিবিএস ক্যাবলস মান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ায় ক্যাবলস রপ্তানির সম্ভাবনা বেড়েছে। তবে এটি একটি জটিল প্রক্রিয়া। এর জন্য দক্ষ জনবল নিয়োগ করতে হবে। বিভিন্ন দেশে পণ্য বাজারজাতকরণের জন্য যোগাযোগ করতে হবে। আন্তর্জাতিক মেলায় অংশ নিতে হবে। করোনা পরিস্থিতির কারণে এসব প্রক্রিয়া শেষ করতে স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে অনেকটা বেশি সময় লাগবে।

মঙ্গলবার, ১ জুন অনুষ্ঠিত কোম্পানির আর্নিংস কলে ফিন্যান্সিয়াল অ্যানালিস্ট ও বিনিয়োগকারীদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ তথ্য জানান। ডিজিটাল প্ল্যাটফরমে অনুষ্ঠিত এই অনুষ্ঠানে কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী বদরুল হাসান, প্রধান অর্থ কর্মকর্তা মোঃ আমিনুল ইসলাম এফসিএমএ এবং কোম্পানি সচিব নাজমুল হাসান বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানে অন্য এক প্রশ্নের জবাবে প্রকৌশলী আবু নোমান হাওলাদার বলেন, সর্বশেষ বছরে তারা কারখানার ৮৭ শতাংশ পর্যন্ত ক্যাপাসিটি ব্যবহার করতে পেরেছেন। দেশের বর্তমান চাহিদা পূরণে কারখানার বিদ্যমান ক্যাপাসিটি যথেষ্ট। তবে আগামী দিনে পণ্যের চাহিদা আরও বৃদ্ধি পেলে এই ক্যাপাসিটি দিয়ে পূরণ করা সম্ভব হবে না। তাই ক্যাপাসিটি বাড়ানোর পরিকল্পনা তাদের আছে। এই ধরনের পরিকল্পনা বাস্তবায়নে এক থেকে দেড় বছর সময় লেগে যায় বলে তারা এখনই পরিকল্পনা চূড়ান্ত করার কথা ভাবছেন।

বিবিএস ক্যাবলসের চেয়ারম্যান বলেন, তারা আগামীতে দেশের ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক্স সেক্টরে নেতৃত্ব দিতে চান। আর এই স্বপ্ন বাস্তবায়নের প্রক্রিয়ায় আছেন তারা।

অনুষ্ঠানে বিবিএস ক্যাবলসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী বদরুল হাসান বলেন, করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও তাদের কোম্পানি পারফরম্যান্স ধরে রাখার চেষ্টা করেছে। সর্বশেষ প্রান্তিকে বিবিএস ক্যাবলসের রিটেইল বিক্রি বেড়েছে। করপোরেট সেক্টরে বিক্রির অবস্থা ছিল স্থিতিশীল। তবে করোনার কারণে সরকারের উন্নয়নমূলক কাজে কিছুটা ধীর গতি দেখা দেওয়ায় ক্যাবল কেনার টেন্ডার হয়েছে কম। তাই এই খাতে বিক্রি কিছুটা কমেছে। তবে করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হলে সরকারি খাতেও ক্যাবলস বিক্রির সম্ভাবনা বেড়ে যাবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

অনুষ্ঠানে কোম্পানির প্রধান অর্থ কর্মকর্তা মোঃ আমিনুল ইসলাম এফসিএমএ সর্বশেষ প্রান্তিকসহ গত ৩ প্রান্তিকের ব্যবসায়িক পারফরম্যান্সের তথ্য তুলে ধরেন। এতে দেখা যায়, হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে কোম্পানিটির পণ্য বিক্রির পরিমাণ ছিল ১৩০ কোটি টাকা, যা গত বছরের একই সময়ে ১৫৭ কোটি টাকা ছিল। অন্যদিকে তিন প্রান্তিক মিলিয়ে ৪৯০ কোটি টাকার পণ্য বিক্রি হয়েছে। আগের বছর একই সময়ে ৬১৪ কোটি টাকার পণ্য বিক্রি হয়েছিল।

তথ্য অনুসারে, তিন প্রান্তিক মিলিয়ে বিবিএস ক্যাবলসের নিট মুনাফা হয়েছে ৭৮ কোটি ৬৮ লাখ টাকা, যা আগের বছর একই সময়ে ১১৩ কোটি ৯৪ লাখ টাকা ছিল। আর তৃতীয়প্রান্তিকে নিট মুনাফা হয়েছে ২০ কোটি ৪৫ লাখ টাকা, যা আগের বছর একই সময়ে ২৮ কোটি ৯৭ লাখ টাকা ছিল।

করোনা পরিস্থিতিজনিত পরিবেশে সরকারি খাতে ক্যাবল কেনার পরিমাণ কমে যাওয়ায় বিবিএসের বিক্রিও কিছুটা কমেছে। অন্যদিকে আন্তর্জাতিক বাজারে তামাসহ বিভিন্ন কাঁচামালের দাম বেড়েছে ৫০ শতাংশের মতো। এই দুই কারণে কোম্পানির নিট মুনাফা ও শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) কিছুটা কমেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here