করোনা প্রতিরোধে দেশে ওষুধ উৎপাদন সম্পন্ন

ডেস্ক রিপোর্ট : করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে কার্যকর ওষুধ রেমডেসিভির উৎপাদন সম্পন্ন করেছে দেশের খ্যাতনামা ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান এসকেএফ ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড। উৎপাদনের সব প্রক্রিয়া শেষ করে ওষুধটি বাজারজাত করার প্রস্তুতি নিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।

প্রস্তুতকৃত স্যাম্পল রবিবার, ১০ মে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের ন্যাশনাল কন্ট্রোল ল্যাবরেটরিতে (এনসিএল) জমা দেওয়া হবে। তারা অনুমোদন দিলে কয়েকদিনের মধ্যেই এটি বাজারে আসবে।

শুক্রবার, ০৮ মে রাতে এসকেএফ ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের পরিচালক (মাকেটিং অ্যান্ড সেলস) ড. মুজাহিদুল ইসলাম গণমাধ্যমকে এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ওষুধটির প্রতিটি ধাপের প্রস্তুতি আমরা শেষ করেছি। আগামী ১০ মে আমরা ন্যাশনাল কন্ট্রোল ল্যাবরেটরিতে ইনজেকশনটির স্যাম্পল পাঠাবো। আশা করি খুব দ্রুত আমরা বাজারজাত করার অনুমতি পাবো। আরও কিছু ধাপ আছে, সেগুলো সম্পূর্ণ করে কয়েকদিনের মধ্যেই আমরা বাজারজাত করতে পারবো।

‘ওষুধের বাজারমূল্য পাঁচ হাজার পাঁচশ টাকা। যেসব হাসপাতালে করোনা চিকিৎসা দেওয়া হবে, শুধু সেখানেই এই ওষুধ পাওয়া যাবে। এক্ষেত্রে রোগীর অবস্থা বিবেচনায় সংশ্লিষ্ট চিকিৎসক ৫ থেকে ১০টি ডোজ দেবেন।’

তিনি আরও বলেন, বিশ্বে করোনার একমাত্র কার্যকর ওষুধ বলে স্বীকৃত জেনেরিক রেমডেসিভির উৎপাদনের সব ধাপ এসকেএফ সম্পন্ন করেছে। এসকেএফের উৎপাদন করা রেমডেসিভিরের বাণিজ্যিক নাম দেওয়া হয়েছে— ‘রেমিভির’। এসকেএফই বিশ্বে প্রথম ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান, যারা জেনেরিক (মূল/গোত্র) রেমডেসিভির উৎপাদন করতে সক্ষম হয়েছে।

করোনার রোগীদের চিকিৎসায় মার্কিন প্রতিষ্ঠান গিলিয়েড সায়েন্সেস কোম্পানির তৈরি এ ওষুধ সারা বিশ্বে সাড়া ফেলেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ওষুধ প্রশাসন (এফডিএ) গত সপ্তাহে করোনার ওষুধ হিসেবে রেমডেসিভিরকে ব্যবহারের অনুমোদন দেয়। আর জাপানের ওষুধ প্রশাসন ৭ মে থেকে ওষুধটি করোনার রোগীদের ওপর প্রয়োগের অনুমতি দিয়েছে।

তবে কবে নাগাদ জাপান এর উৎপাদনে যাবে, তা এখনও ঠিক হয়নি বলে সে দেশের একজন স্বাস্থ্য কর্মকর্তা রয়টার্সকে জানিয়েছেন।

মার্কিন প্রতিষ্ঠান গিলিয়েড সায়েন্সেস ওষুধটি উৎপাদনের জন্য ভারত ও পাকিস্তানের বড় প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ করছে বলেও জানা গেছে।

এ অবস্থায় এসকেএফই বিশ্বে প্রথম ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান, যারা জেনেরিক (মূল/গোত্র) রেমডেসিভির উৎপাদন করতে সক্ষম হলো। এসকেএফের উৎপাদন করা রেমডেসিভিরের বাণিজ্যিক নাম ‘রেমিভির’।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here