এমটিবির প্রায় শতকোটি টাকা মুনাফা হলেও শেয়ারহোল্ডাররা এক টাকাও পাবে না

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের (এমটিবি) ২০২০ সালের ব্যবসায় প্রায় ৯৭ কোটি টাকার নিট মুনাফা হয়েছে। তবে এরমধ্য থেকে শেয়ারহোল্ডারদের ১ টাকাও না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ব্যাংকটির পরিচালনা পর্ষদ। এজন্য ব্যাংকটিকে ৭ কোটি টাকার বেশি অতিরিক্ত করের শাস্তির কবলে পড়তে হবে।

২০১৮-১৯ অর্থবছরের অনুমোদিত বাজেট অনুযায়ি, শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত কোনো কোম্পানি কোনো অর্থবছরে নগদ লভ্যাংশের বেশি বোনাস শেয়ার দিতে পারবে না। অর্থাৎ নগদ ও বোনাস লভ্যাংশ সর্বোচ্চ সমান সমান হতে পারবে। যদি কোনো কোম্পানি বোনাস শেয়ার বেশি দেয়, তাহলে ওই বোনাস শেয়ারের উপর ১০ শতাংশ হারে কর আরোপ করা হবে।

মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের ২০২০ সালের ব্যবসায় শেয়ারপ্রতি ১.৩১ টাকা হিসেবে মোট ৯৬ কোটি ৭৬ লাখ টাকার নিট মুনাফা হয়েছে। এরমধ্যে থেকে ১০ শতাংশ বোনাস শেয়ারবাবদ শেয়ারপ্রতি ১ টাকা করে মোট ৭৩ কোটি ৮৬ লাখ টাকা দিয়ে পরিশোধিত মূলধন বাড়ানো হবে। বাকি ২২ কোটি ৯০ লাখ টাকা রিজার্ভে যোগ হবে। এর মাধ্যমে কোম্পানির মুনাফার ১ টাকাও শেয়ারহোল্ডারদের মাঝে বিতরণ করা হবে না।

এরফলে কোম্পানিটিকে ৭৩ কোটি ৮৬ লাখ টাকার বোনাস শেয়ারের উপর ১০ শতাংশ হারে ৭ কোটি ৩৯ লাখ টাকার অতিরিক্ত কর দিতে হবে।

এদিকে ব্যাংকটির ২০২০ সালের শেষ প্রান্তিকের (অক্টোবর-ডিসেম্বর ২০) ব্যবসায় লোকসান হয়েছে। কোম্পানিটির ২০২০ সালের প্রথম ৯ মাসে (জানুয়ারি-সেপ্টেম্বর) শেয়ারপ্রতি মুনাফা (ইপিএস) হয়েছিল ১.৬৮ টাকা। তবে বছর শেষে এই মুনাফার পরিমাণ কমে এসেছে ১.৩১ টাকায়। অর্থাৎ কোম্পানিটির শেষ প্রান্তিকে লোকসান হয়েছে ০.৩৭ টাকা।

এছাড়া ব্যাংকটির শেষ প্রান্তিকের সঙ্গে সঙ্গে আগের অর্থবছরের তুলনায় মুনাফায় পতন হয়েছে। আগের বছরের ২.০৩ টাকার ইপিএস ২০২০ সালে ১.৩১ টাকায় নেমে এসেছে। এক্ষেত্রে ইপিএস কমেছে ০.৭২ টাকা বা ৩৫ শতাংশ।

উল্লেখ্য মঙ্গলবার (০৪ মে) লেনদেন শেষে মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের শেয়ার দর দাড়িঁয়েছে ১৮.৩০ টাকায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here