এক দিন পরই সূচকের ওঠানামা, তবে লেনদেন চাঙা

২১৬ পয়েন্ট বাড়ার এক দিন পরেই মিশ্র প্রবণতা দেখা যাচ্ছে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই)। তবে লেনদেনের গতি বেশ ভালো রয়েছে। আজ সোমবার সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবস লেনদেনের প্রথম দুই ঘণ্টা পর প্রধান সূচক ডিএসইএক্সে কমেছে ৩৭ পয়েন্ট।

আজ লেনদেনের শুরু থেকেই সূচকটিতে একটা মিশ্র প্রবণতা দেখা যায়। কিছুটা মূল্য সংশোধন দেখা যাচ্ছে, অর্থাৎ বিনিয়োগকারীদের মাঝে মুনাফা তুলে নেওয়ার প্রবণতা দেখা যাচ্ছে আজ। তবে দুপুর ১২টা নাগাদ লেনদেন ছাড়িয়েছে ১ হাজার ২৫২ কোটি টাকা। এ সময় পর্যন্ত হাতবদল হওয়া শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৬৯টির, কমেছে ১২৩টির অপরিবর্তিত আছে ৬৭টির দর।
অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই) সূচক কমেছে। দুপুর ১২টা নাগাদ সার্বিক সূচক কমেছে ৮৪ পয়েন্ট।

গতকাল রোববার বড় উত্থান দিয়ে শেয়ারবাজারে নতুন বছর শুরু হয়েছে। প্রায় এক বছরের ব্যবধানে ডিএসইএক্সের সর্বোচ্চ উত্থান হয় গতকাল। সূচকটি দিন শেষে সাড়ে ৫ হাজারের মাইলফলক অতিক্রম করে। এর আগে সর্বশেষ সদ্য বিদায়ী ২০২০ সালের ১৯ জানুয়ারি ডিএসইএক্স সূচকটি স্বাভাবিক লেনদেনকালে এক দিনে সর্বোচ্চ ২৩২ পয়েন্ট বা ৫ দশমিক ৫৯ শতাংশ বেড়েছিল। লেনদেনও ছিল ছয় মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ।এ ছাড়া গত ১৯ মার্চ বিশেষ কারণে এক দিনে এ সূচকটি সর্বোচ্চ ৩৭১ পয়েন্ট বা ১০ শতাংশের বেশি বেড়েছিল। শেয়ারবাজারের পতন ঠেকাতে ওই দিন শেয়ারের সর্বনিম্ন মূল্যস্তর বা ফ্লোর প্রাইস বেঁধে দেওয়া হয়েছিল। এ কারণে ওই দিন খুব অল্প সময়ের লেনদেনে অস্বাভাবিক উত্থান হয়েছিল সূচকের। তাই সূচকের ওই বৃদ্ধিকে স্বাভাবিক দিনের সঙ্গে তুলনায় নেওয়া হয় না।

মূলত গত জুলাই থেকেই শেয়ারবাজারে চাঙা ভাব ফিরতে শুরু করে। ডিসেম্বরের শেষ দিকে এসে তাতে নতুন গতি সঞ্চার হয়। তারই ধারাবাহিকতায় গতকাল বড় উল্লম্ফন ঘটে লেনদেন ও সূচকে। গতকালের এ উত্থানের পেছনে দুটি খবর মুখ্য ভূমিকা রেখেছে। তার একটি হলো প্রাথমিক শেয়ার তথা আইপিও আবেদনের ক্ষেত্রে সেকেন্ডারি বাজারে ন্যূনতম বিনিয়োগের বাধ্যবাধকতা আরোপ। আর ভারতে অক্সফোর্ড ও অ্যাস্ট্রাজেনেকার করোনা টিকা ব্যবহারের অনুমোদন। ভারতে এ টিকা তৈরি করছে সেরাম ইনস্টিটিউট। তাদের এ টিকা বাংলাদেশে আনবে বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস। এ জন্য সরকারের সঙ্গে চুক্তিও করেছে বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস।

টিকার খবরে গতকাল বেক্সিমকো গ্রুপ-সংশ্লিষ্ট সব প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের সর্বোচ্চ মূল্যবৃদ্ধি ঘটে। এদিন বাজারের মোট লেনদেনের প্রায় ২৫ শতাংশই ছিল এ গ্রুপ-সংশ্লিষ্ট চার প্রতিষ্ঠানের। সেগুলো হলো বেক্সিমকো ফার্মা, বেক্সিমকো লিমিটেড, আইএফআইসি ব্যাংক ও শাইনপুকুর সিরামিকস।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here