৪৫ হাজারের বেশি বিনিয়োগকারী মোবাইল অ্যাপসে লেনদেন করছে

স্টাফ রিপোর্টার : দিন দিন প্রযুক্তির ছোয়া মানুষের জীবন যাত্রাকে সহজ করে দিয়েছে। তেমনি পুঁজিবাজারে লেনদেনের বিষয়টিও ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) মোবাইল অ্যাপস সহজ করে দিয়েছে। মোবাইল অ্যাপস চালুর ৩ বছরে এর মাধ্যমে লেনদেন করছে ৪৫ হাজারের বেশি বিনিয়োগকারী। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

তথ্যমতে, বুধবার, ২৯ মে পর্যন্ত ডিএসই মোবাইল অ্যাপস ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৪৫ হাজার ৪৫২ তে দাঁড়েয়েছে। এর আগে ২০১৬ সালের ৯ মার্চ মোবাইলে লেনদেনের অ্যাপ ‘ডিএসই মোবাইল’ চালু হয়। প্রতি মাসেই নতুন নতুন বিনিয়োগকারী সেবাটি ব্যবহার করার জন্য রেজিস্ট্রেশন করছে। চালুর এক বছর পর ২০১৭ সালের ৯ মার্চ পর্যন্ত ব্যবহারকারীর সংখ্যা ছিল ১০ হাজার ৪১১ জন।

দ্বিতীয় বছরে ২০১৮ সালের ৯ মার্চ অ্যাপসটি ব্যবহারকারীর সংখ্যা ছিল ২৭ হাজার ২৩১ জন। এভাবে ধারাবাহিকভাবে বাড়ছে মোবাইল অ্যাপস ব্যবহারকারীর বিনিয়োগকারীর সংখ্যা।

এদিকে, সর্বশেষ ব্যবহারকারীদের মধ্যে শেয়ার কেনাবেচার জন্য অর্ডার দিয়েছে ২৫ হাজার ৩৪৫ টি। এরমধ্যে শেয়ার বেচাকেনা অর্ডার কার্যকর করেছেন ১৬ হাজার ২৬২ টি।

জানা গেছে, ডিএসইর মোবাইল অ্যাপসটি ব্যবহারে আগ্রহীদের ভালো স্মার্টফোন ব্যবহার করতে হয়। অ্যাপসটি ব্যবহারের আগে নিজ নিজ ব্রোকার হাউজ বা মার্চেন্ট ব্যাংকের মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করতে হয়। এজন্য প্রথমে বিনিয়োগকারীকে ব্রোকার হাউজে গিয়ে মোবাইল অ্যাপসের কোনো একটি নির্দিষ্ট সংস্করণের জন্য আবেদন করতে হবে।

পরবর্তীতে ব্রোকারেজ হাউজ সংশ্লিষ্ট বিনিয়োগকারীর ই-মেইলে মোবাইল অ্যাপসের লিঙ্ক পাঠাবে, যেটি ডাউনলোড করে একজন বিনিয়োগকারী মোবাইল অ্যাপস চালু করতে পারবেন।এজন্য বিনিয়োগকারীকে সামান্য ফি দিতে হবে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, প্রযুক্তিগত আধুনিকায়নের সাথে তাল মিলিয়ে ২০১৬ সালে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) মোবাইল অ্যাপসের মাধ্যেমে লেনদেনের নতুন মাত্রা যোগ হয়েছে। বর্তমান প্রযুক্তির যুগে যেভাবে অ্যাপসটি ব্যবহার করার কথা ছিল সেভাবে ব্যবহারকারী বাড়ছে না। তবে এসব বিষয়ে অধিক প্রচারনা ও ট্রেনিংয়ের মাধ্যমে বিনিয়োগকারীদের অ্যাপসটি আরও জনপ্রিয় করে তোলা সম্ভব বলে মনে করছেন তারা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here