সাফকো স্পিনিংয়ের নতুন কারখানা স্থাপন, সুফল পাওয়ার আশাবাদ বিনিয়োগকারীদের

মোহাম্মদ তারেকুজ্জামান : পুঁজিবাজারে তালিকাভূক্ত কোম্পানি সাফকো স্পিনিং মিলস লিমিটেড। ২০০০ সালে তালিকাভূক্ত হওয়া কোম্পানিটি আগের চেয়ে এখন আরও বিস্তর পরিসরে কার্যক্রম পরিচালনা করছে। টেক্সটাইল সেক্টরের কোম্পানিটি কটন ও পলেস্টার টেক্সটাইল ইয়ার্ন উৎপাদন করে থাকে। হবিগঞ্জের নয়াপাড়ায় কোম্পানিটির কারখানা। উৎপাদন বাড়াতে কোম্পানিটি নয়াপাড়ায় নতুন বিল্ডিং ও মেশিনারিজ স্থাপন করেছে। পুরাতন ও নতুন মেশিনারিজের সমন্বয়ে আগের চেয়ে অধিক উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়েছে কোম্পানিটির। পাশাপাশি ব্যবসাও সম্প্রসারিত হয়েছে। সরেজমিন ঘুরে এসব তথ্য জানা গেছে।

সরেজমিন ঘুরে আরও জানা যায়, কোম্পানিটির কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে ভালো সমন্বয় রয়েছে। কর্মচারীরা কোম্পানির উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের ব্যবহারে সন্তোষ প্রকাশ করেছন। কারখানায় তিন শিফটে ২৪ ঘন্টায় উৎপাদন কাজে নিয়োজিত রয়েছেন কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

সাফকো স্পিনিং মিলস লিমিটেডের যেভাবে উৎপাদন বৃদ্ধি পাচ্ছে তাতে করে খুব অল্প সময়েই সাধারণ ও প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরা এর সুফল পাবেন বলে অনেকে অভিমত প্রকাশ করেছেন।

চিত্র : সাফকো স্পিনিং মিলস লিমিটেডের কারখানা

ডিএসই সূত্রে জানা যায়, বুধবার, ০৪ সেপ্টেম্বর সাফকো স্পিনিং মিলস লিমিটেডের ক্লোজিং প্রাইজ ছিল ১৬ টাকা ৬০ পয়সা। ১০০ কোটি টাকার অনুমোদিত মূলধনী কোম্পানিটির পরিশোধিত মূলধন ২৯ কোটি ৯৮ লাখ টাকা। ১০ টাকা ফেসভ্যালুর কোম্পানিটি ২০১৬, ২০১৭ ও ২০১৮ সালে স্টক ডিভিডেন্ড দিয়েছে।

সূত্রমতে, কোম্পানির মোট শেয়ার সংখ্যা ২ কোটি ৯৯ লাখ ৮১ হাজার ৭১৬টি। এরমধ্যে স্পন্সর ডিরেক্টরদের শেয়ার রয়েছে ৩০ শতাংশ, সাধারণ বিনিয়োগকারীদের শেয়ার রয়েছে ৬৮ দশমিক ৫২ শতাংশ ও প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের শেয়ার রয়েছে ১ দশমিক ৪৮ শতাংশ।

‘বি’ ক্যাটাগরির কোম্পানিটির গত ৫২ সপ্তাহে শেয়ার দর ওঠানামা করেছে ১৪ দশমিক ৭০ টাকা থেকে ২৫ দশমিক ২০ টাকায়। ২০১৭ সালে কোম্পানিটি প্রফিট করেছে ১ কোট ১১ লাখ টাকা। এবং ২০১৮ সালে কোম্পানিটি প্রফিট করেছে ১ কোটি ২২ লাখ টাকা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here