‘সাইন্টিফিক্যালি বিনিয়োগ করতে হবে বিনিয়োগকারীদের’

sdr

মোহাম্মদ তারেকুজ্জামান : উত্থান-পতনের মধ্য দিয়ে শেয়ারবাজার অতিবাহিত হচ্ছে। তবে উত্থানের চেয়ে পতনেই বেশি হচ্ছে। এ অবস্থা থেকে কিভাবে শেয়ারবাজারের উত্তরণ ঘটবে তা নিয়ে নানা দিক নির্দেশনা দিয়েছেন আইসিবি অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি লিমিটেডের এক্সেকিউটিভ অফিসার মো. শাহেদুল হাসান।

সম্প্রতি এক সংক্ষিপ্ত সাক্ষাতকারে তিনি বলেন, পুঁজিবাজারের ওপর বর্তমান সরকারের যথেষ্ঠ নজরদারী রয়েছে। পাশাপাশি নিয়ন্ত্রক সংস্থারও নজরদারী রয়েছে। তবে শুধু নজরদারী থাকলেই চলবে না। পুঁজিবাজারের উন্নয়নে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের এগিয়ে আসতে হবে। বিশেষ করে ব্যাংক, ইন্স্যুরেন্স, পাওয়ার, গ্যাস সেক্টরকে এগিয়ে আসতে হবে। আশা করি এসব প্রতিষ্ঠান এগিয়ে আসলে আগামী ২/৩ বছরের মধ্যে শেয়ারবাজার ভালো হয়ে যাবে।

মো. শাহেদুল হাসান বলেন, কোন প্রতিষ্ঠানের প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) ভালো হলেই যে সে প্রতিষ্ঠানের শেয়ার দর ভালো হবে এমনটি নয়। অনেক প্রতিষ্ঠান রয়েছে যাদের এনএভি ভালো কিন্তু শেয়ার দর খারাপ। এছাড়াও স্পন্সর ডিরেক্টরদের শেয়ার ৩০ শতাংশের নিচে রয়েছে এমন অনেক প্রতিষ্ঠানের শেয়ার দর ভালো। আবার অনেক প্রতিষ্ঠান রয়েছে যাদের স্পন্সর ডিরেক্টরদের শেয়ার ৩০ শতাংশ বা তার ওপরে অথচ সেসব প্রতিষ্ঠানের শেয়ার দর একটি ডিমের দামের সমানও নয়। আসলে একটি কোম্পানি ভালো হবে তখনই যখন সে কোম্পানিতে সুশাসন থাকে। সুশাসন না থাকলে স্পন্সর ডিরেক্টরদের শেয়ার ৩০ শতাংশ থাকলেই কি আর না থাকলেই কি। পাশাপাশি এনএভি ভালো হলেই বা কি।

শেয়ারবাজার ভালো করতে ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদেরও এগিয়ে আসতে হবে। না বুঝে যেকোন প্রতিষ্ঠানে বিনিয়োগ করা যাবে না। বিশেষ করে যেসব শেয়ারের বেজমেন্ট রয়েছে সেসব শেয়ারে বিনিয়োগ করতে হবে। অর্থাৎ বিনিয়োগকারীরা যদি সাইন্টিফিক্যালি ও অ্যানালাইসিস করে বিনিয়োগ করে তবে শেয়ারবাজারের এমন দূরাবস্থা বেশি দিন থাকবে না। পাশাপাশি বিশ্ব ব্যাংক যদি শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ করে এবং নিয়ন্ত্রক সংস্থা নতুন করে আরও কিছু প্রনোদনা দেয় ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের তবে পুঁজিবাজার ভালো হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here