লভ্যাংশ ঘোষণা সামনে, বেড়েছে বসুন্ধরা পেপারে পরিচালক ও প্রতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীর শেয়ার ধারণ

স্টাফ রিপোর্টার: সদ্য পুঁজিবাজারে  তালিকাভূক্ত বসুন্ধরা পেপার মিলসের স্পেনসার বা ডিরেক্টর ও প্রতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীর অংশের শেয়ার ধারণের অংশ বাড়ছে। স্পেনসার বা ডিরেক্টর ও প্রতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীর অংশের শেয়ার ধারণ গত দুই মাসে যথাক্রমে বেড়েছে ৪.৭২ ও .১০ শতাংশ। অপর দিকে কমছে পাবলিকে অংশের শেয়ার। লভ্যাংশ ঘোষণার বোর্ড  মিটিং আগামী ২৩ অক্টোম্বর। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বিস্তারি দেখ ুন লিংকটিতে  ক্লিক করে।

অাগামী ২৩ অক্টোম্বর,২০১৮ তারিখে বছর শেষের বোর্ড মিটিং লভ্যাংশ ঘোষণা অাসবে।  এটি অাইপিও পরর্বতী  প্রথম লভ্যাংশ ঘোষণা। বিনিয়োগকারী অারাফাত মনে করেন, লভ্যাংশ ঘোষণা অাগে স্পেনসার বা ডিরেক্টর ও প্রতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীর অংশের শেয়ার ধারণের পরিমান বাড়াটা ইতিবাচক।

অপর দিকে কোম্পানিটি লিস্টেড হওয়ার কিছুদিন পরই নতুন পণ্যের বাণিজ্যিক উৎপাদন শুরু হয়েছে গত মাসে। নতুন পণ্য এক্সট্রিম মশার কয়েল। নতুন এই প্রকল্প থেকে প্রতিদিন প্রায় ১০ লাখ কয়েল উৎপাদন সম্ভব। এতে কোম্পানিটি বছরে ৩৬ কোটি বক্স কয়েল উৎপাদন করতে পারবে বলে যানা যায়। কোম্পানিটি আশা করছে, এই পণ্য বাজারজাত করার পর কোম্পানিটির বছরে প্রায় ১০০ কোটি টাকার রাজস্ব বাড়বে।

বিস্তারিত দেখুন লিংকটিতে ক্লিক করে।

শেয়ারবাজারে তালিকাভূক্তির পর থেকে সব থেকে কম দরের কাছাকাছি রয়েছে বর্তমানে শেয়ারটির দর।

ডিএসইতে দুই জুলাই, ২০১৮ তারিখে লেনদেন শুরু হওয়া কোম্পানিটির সর্বশেষ বাজারমূল্য ১১৮ টাকা ০০ পয়সা থেকে ১২২ টাকা ০০ পয়সায় মধ্যে উঠানামা করছে। গত প্রায় দুই মাসে ডিএসইতে এর সর্বনিম্ন দর ছিল  ১০৯ টাকা ৯০ পয়সা ও সর্বোচ্চ ১৯০ টাকা ৫০ পয়সা। সর্বনিম্ন ও সর্বোচ্চ বাজারমূল্যে মধ্যে ৮০.৬ টাকা ব্যবধান হয়েছে। বিস্তারিত ডিএসইতে  দেখ ুন লিংকটিতে  ক্লিক করে।

তথ্যানুসারে, বসুন্ধরা পেপার পুঁজিবাজারে ২ কোটি ৬০ লাখ ৪১ হাজার ৬৬৭টি শেয়ার ইস্যুর মাধ্যমে ১৯৯ কোটি ৯৯ লাখ ৯৯ হাজার ৯৫২ টাকা সংগ্রহ করে। এর মধ্যে কাট অফ প্রাইস বা ৮০ টাকা দরে ১ কোটি ৫৬ লাখ ২৫ হাজার শেয়ার ইলিজিবল ইনভেস্টরদের কাছে ১২৫ কোটি টাকায় ইস্যু উত্তোলন করে। বাকি ১ কোটি ৪ লাখ ১৬ হাজার ৬৬৬টি শেয়ার কাট অফ প্রাইসের ১০ শতাংশ কমে ৭২ টাকা করে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে ৭৪ কোটি ৯৯ লাখ ৯৯ হাজার ৯৫২ টাকায় বিক্রি করে।

কোম্পানিটির প্রসপেক্টাস অনুসারে, আইপিওর মাধ্যমে সংগৃহীত অর্থে কারখানার অবকাঠামো উন্নয়ন, যন্ত্রপাতি ক্রয়, স্থাপনা ও ভূমি উন্নয়ন বাবদ ১৩৫ কোটি, ঋণ পরিশোধ বাবদ ৬০ কোটি এবং বাকি ৫ কোটি টাকা আইপিও প্রক্রিয়ার ব্যয়নির্বাহে খরচ করবে বসুন্ধরা পেপার। কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব পালন করেছে এএএ ফাইন্যান্স এন্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড।

অারোও পড়ুন: ২৭৭ শতাংশ প্রফিট দিয়ে ডাইন্ডট্রেন্ডে লিগাসি ফুটওয়্যার

লিগ্যাসি ফুটওয়্যারের প্রতিষ্ঠানিক ট্রেডারদের ১৮.৮০% শেয়ার উচ্চমূল্যে বিক্রয়

বোর্ড মিটিংয়ের তারিখ ঘোষণা তের কোম্পানির

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here