মিরসরাইয়ে পোশাক শিল্প নগরী স্থাপনে বিজিএমই-বেজা চুক্তি

বুধবার ঢাকায় বেজার নির্বাহী সদস্য মো. হারুনুর রশিদ এবং বিজিএমইএর সভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।

এই সময় বেজা কর্তৃপক্ষকে ভূমি ইজারা বাবদ ২৫ কোটি টাকা দেন বিজিএমইএ সভাপতি।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, আগামী ডিসেম্বরের মধ্যেই সেখানে অবকাঠামো নির্মাণ কাজ ‍শুরু হবে।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক মো. আবুল কালাম আজাদ, বাণিজ্য সচিব শুভাশিষ বসু, বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী, এফবিসিসিআই সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, বাংলাদেশ এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আবদুস সালাম মুর্শেদি, বিজিএমইএর সাবেক সভাপতি আতিকুল ইসলাম অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

আবুল কালাম আজাদ বলেন, “এ উদ্যোগের ফলে বিজিএমইএ এবং বেজার মধ্যে সম্পর্ক আরোও দৃঢ় হবে। ভবিষতে এ ধরনের প্রকল্পের সফল বাস্তবায়নে বেজা এবং বিজিএমইএ এক সাথে কাজ করবে।”

বিজিএমইএ সভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান বলেন, “ইতোপূর্বে বসত বাড়িতেও পোশাক কারখানা স্থাপন করে ব্যবসা চালিয়েছে মালিকরা। অনেক কৃষি জমি নষ্ট করে কারখানা স্থাপন করতে হয়েছে। গ্যাস-বিদ্যুতের জন্য বহু দপ্তরের দ্বারে দ্বারে দৌঁড়াতে হয়েছে। নতুন শিল্পপার্ক এসব ঝামেলা থেকে পোশাক খাতকে মুক্ত করবে।”

সভাপতির বক্তব্যে বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী বলেন, বিজিএমইএ দ্রুত এ প্রকল্প বাস্তবায়নের কারণে ঢাকা শহরের উপর এ জনস্রোতের চাপ কিছুটা হলেও হ্রাস পাবে। সমুদ্র বন্দরের নিকটবর্তী হওয়ায় পরিবহন ব্যয় কম হবে এবং প্রতিযোগিতামূলক বিশ্ব বাজারে বাংলাদেশের পোশাক রপ্তানি বৃদ্ধি পাবে।”

বেজা ১৮টি বেসরকারি অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠায় প্রাকযোগ্যতা সনদ দিয়েছে। এর মধ্যে থেকে ছয়টিকে চূড়ান্ত লাইসেন্স দেওয়া হয়েছে।

মিরসরাই ও ফেনী অর্থনৈতিক অঞ্চলে ১৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগের প্রস্তাব পেয়েছে বেজা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here