ভালো ঘুমের পাঁচ প্রয়োজন

বিবিসি অবলম্বনে লতিফুর রহমান: বিশেষজ্ঞদের মতে বিভিন্ন ক্ষতির কারণ হিসেবে নিদ্রাহীনতাকে দায়ী  আর সম্ভাবনা কাজে লাগাতে প্রয়োজনীয় ঘুমানোর প্রয়োজন। দেখে নেই ভালো ঘুমানোর পাঁচ প্রয়োজন।

শেখার দক্ষতা ও স্মৃতি বৃদ্ধি: ঘুম ব্যক্তির শেখার দক্ষতা ও স্মৃতি ধারণের ক্ষমতা বাড়ায়। পড়ালেখার পূর্বে ঘুমিয়ে নিলে মস্তিস্ক কর্মক্ষম হয়ে ওঠে। আর পড়া শেষে ঘুমালে পড়া স্মৃতিতে গেঁথে যায়। বিজ্ঞানীদের অভিমত হচ্ছে রাত জেগে পড়াশোনা উপকারের চেয়ে ক্ষতি বয়ে আনে।

সৃজনশীলতা বৃদ্ধি: পর্যাপ্ত ও নিরবিচ্ছিন্ন ঘুম মানুষের সৃজনশীলতা বাড়ায়। গদবাধা কাজের বাইরে যারা নতুন আইডিয়া নিয়ে কাজ করেন তাদের জন্য ঘুম খুবই ফলদায়ক।

অসুখের প্রতিষেধক:  নিদ্রহীনতা মানুষের নানান জটিল অসুখের কারণ। পর্যাপ্ত ঘুম অসুখের প্রতিষেধক হিসেবে কাজ করে। মানসিক ও শারীরিক উভয় সমস্যার জন্য নিদ্রাহীনতা দায়ী। পর্যাপ্ত ঘুমালে চিকিৎসা খরচ কমে আসবে বলে বিশেষজ্ঞরা মত প্রকাশ করেছেন।

মৃত্যুঝুঁকি কমায়: কম ঘুমানো মৃত্যুহার বা মৃত্যুঝুঁকি বাড়িয়ে দেয়। কেউ কেউ বলে থাকেন, ‘তুমি তো মরে গেলে প্রচুর ঘুমাতে পারবা’। এটা আসলে মানুষকে ভুল বার্তা দেয়। আমাদের যখন মরতেই হবে তখন বেশি সময় বেঁচে থাকার জন্য চেষ্টা করা উচিত।

অায় উন্নতি:  একটা ভুল ধারণা প্রচলিত আছে যে ব্যবসার উন্নতি চাইলে ঘুমানো চলবে না। গবেষণা বলছে এতে বরং চরম মূল্য দিতে হয়। ব্যক্তি ক্ষতির সম্মূখীন হয় এবং সামষ্টিকভাবে দেশের মোট আয় কমে যায়। ভালো ঘুম জিডিপির শতকরা দুইভাগ উন্নতি ঘটাতে সক্ষম বলে গবেষণায় পেয়েছে গবেষণা প্রতিষ্ঠান র‌্যান্ড কর্পোরেশন। তার মানে কিছু না করে ঘুমালেই উন্নতি হবে না। বরং ভাল ঘুমসহ পরিশ্রম করতে হবে।

ব্যক্তিভেদে ঘুমের সময়ের পার্থক্য হতে পারে। তবে নূন্যতম ছয় ঘন্ট থেকে সর্বউচ্চ আট ঘন্ট ঘুমান উচিৎ বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here